অন্যান্য 

মনুবাদী রাজনৈতিক দল যদি এই রাজ্যের ৪২টি লোকসভা আসন দলিত-মুসলিম ও আদিবাসীদের ছেড়ে দেয় তাহলেও আমাদের রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন হবে না : ইমতিয়াজ আহমেদ

শেয়ার করুন
  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ইমতিয়াজ আহমেদ মোল্লা- পশ্চিমবাংলার রাজনৈতিক আঙিনায় পরিচিত মুখ । তাঁর বক্তব্য দেওয়ার ক্ষমতা ও সাংগঠনিক দক্ষতায় যেকোনো বড় রাজনৈতিক দলের কাছে তিনি গ্রহণযোগ্য হতে পারতেন। কিন্ত তিনি বিশ্বাস করেন কোনো মনুবাদী রাজনৈতিক দল এদেশের সংখ্যালঘু – দলিত স্বার্থে কোনো কাজ করবে না। তাই তিনি নিজেই গড়ে তুলেছেন ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল পার্টি । তাঁর পার্টির উদ্দেশ্য- লক্ষ্য ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে বাংলার জনরব নিউজ পোর্টালের মুখোমুখি । আজ দ্বিতীয় কিস্তি ।

প্রশ্ন :  কোনো কোনো অরাজনৈতিক সংগঠন শাসক দলের কাছে দাবি করছে আগামী লোকসভা নির্বাচনে ১৪ টি আসনে মুসলিম প্রার্থী দিতে হবে ? এই দাবি যদি মেনে নেয় শাসক দল তাহলে তো রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন নিয়ে আর প্রশ্ন তোলার অবকাশই থাকবে না ?

ইমতিয়াজ আহমেদ : মনুবাদী রাজনৈতিক দল যদি এই রাজ্যের ৪২টি লোকসভা আসন দলিত-মুসলিম ও আদিবাসীদের ছেড়ে দেয় তাহলেও আমাদের রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন হবে না। কারণ রাজনীতির মূল নিয়ন্ত্রণ শক্তি থাকবে তাদের হাতেই । সুতরাং ১৪ টি লোকসভা আসন ছেড়ে দিলেও তাতে মুসলিমদের কোনো উন্নয়ন হবে না ।

প্রশ্ন : আপনার ভাষনে বেশির ভাগটাই রাজ্যের বর্তমান শাসক দলের বিরুদ্ধে থাকে । যদিও শাসক দল অনেক উন্নয়ন মূলক কাজ করে চলেছে বলে দাবি করে । এ প্রসঙ্গে আপনার প্রতিক্রিয়া ?

ইমতিয়াজ আহমেদ : উন্নয়ন কোন উন্নয়নেরকথা বলছেন ? কলকাতা শহরকে লন্ডন বানানোর প্রতিশ্রুতি শুনেছিলাম । কিন্ত কী হয়েছে ? শহরের সব বেআইনিভাবে তৈরি করা পাঁচ তলা বাড়িকে পুরসভা অনুমোদন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে । কিন্ত খোঁজ নিলে দেখা যাবে যে সব পাঁচতলা বাড়িকে পুরসভা অনুমোদন দিয়েছে তার ভিত দুতলার আছে । তাহলে দুতলার ভিত দেওয়া বাড়িতে পাঁচতলা হয়েছে । কোনো রকম পরীক্ষা না করে তাকে অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে । আবার প্রমোটাররা ওই পাঁচতলা বাড়িকে বেআইনিভাবে আর এক তলা তুলছে । এরফলে কলকাতার প্রায় সমস্ত সংখ্যালঘু প্রধান এলাকার বাড়িগুলি বিপজ্জনক হয়ে রয়েছে । হয়তো বিশ-পঁচিশ বছর পর কোনো অঘটন ঘটে যেতে পারে ।

যদি লন্ডন বানানোর ইচ্ছা থাকে তাহলে তো পুরসভা তো সিদ্ধান্ত নিতে পারতো যে অনুমোদন নিয়ে বাড়ি তৈরি করতে হবে । এর ফলে বাড়িগুলি অনেক বেশি মজবুত ও টেকসই হত । আসলে আমাদের শহরের মেয়র একই সঙ্গে মন্ত্রী, জেলার সভাপতি । আবার তার উপরে রয়েছে পারিবারিক অশান্তি তা সত্ত্বে তাকেই কেন এতগুলি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তা এখনও আমাদের বোধগম্য হচ্ছে না । আসলে এটাই মনুবাদী শাসন ।


শেয়ার করুন
  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment