দেশ 

রাম-মন্দির নির্মাণ নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং-র হুঁশিয়ারি “ মুসলিমরা ভগবান রামের উত্তরপুরুষ। তাই অযোধ্যায় মন্দির তৈরিতে তাদের সাহায্য করা উচিত। আর যদি হিন্দুরা ধৈর্য হারিয়ে ফেলে তবে তারা মথুরা, অযোধ্যা ও কাশী দখল করে নেবে।”

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই হিন্দু সংগঠনগুলি রাম মন্দির নির্মাণ আন্দোলন জোরদার করছে । আসলে নরেন্দ্র মোদী দেশের মানুষকে যে প্রতিশ্রূতি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন সেই আচ্ছে দিন এখন বুরা দিনে পরিণত হয়েছে । তাই স্বাভাবিকভাবে দেশের মানুষকে ভূল পথে পরিচালনা করার লক্ষ্যে এখন হিন্দুত্বকে হাতিয়ার করে তুলতে চলেছে বিজেপি-আরএসএস । এবার আসরে নেমেছেন কেন্দ্রীয় গিরিরাজ সিং তিনি সোমবার উত্তরপ্রদেশের মথুরায় এক বির্তকিত মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন ,

“মুসলিমরা মোঘল সম্রাট বাবরের নয়, ভগবান রামের উত্তরপুরুষ। তাই অযোধ্যায় মন্দির তৈরিতে তাদের সাহায্য করা উচিত। আর যদি হিন্দুরা ধৈর্য হারিয়ে ফেলে তবে তারা মথুরা, অযোধ্যা ও কাশী দখল করে নেবে।”

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং। তিনি বলেন, “আপনি (রাহুল) যদি প্রকৃত হিন্দু হন তবে বিফ খাওয়া বন্ধ করুন। শুধুমাত্র নির্বাচনের আগে মন্দিরে মন্দিরে যাওয়া ছাড়ুন।”

গত ২৭ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের তিন সদস্যর ডিভিশন বেঞ্চ নমাজ় নিয়ে ১৯৯৪ সালের রায় পুনর্বিবেচনার জন্য বৃহত্তর বেঞ্চে পাঠানোর আবেদন খারিজ করে দেয়। ১৯৯৪ সালে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ রায় দিয়েছিল, নমাজ় মসজিদ ছাড়াও অন্যত্র পড়া যেতে পারে। যে কোনও জায়গাতেই নমাজ় পাঠ করা যেতে পারে। তাই সরকার যদি মনে করে তাহলে যে জমিতে মসজিদ রয়েছে তা অধিগ্রহণ করতে পারে। এই রায়ের প্রভাব মূল অযোধ্যা মামলায় পড়বে না বলেও জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের বেঞ্চ।

শীর্ষ আদালত জানিয়ে দেয়, ২৯ অক্টোবর থেকে অযোধ্যা মামলার শুনানি শুরু হবে। শীর্ষ আদালতের এই পর্যবেক্ষণ আসায় রাজনৈতিকভাব অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির দাবি আরও জোরালো হয়েছে।

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment