কলকাতা 

বাংলার বুকে সমগ্র সংখ্যালঘু সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করার লক্ষ্যে নতুন সংগঠন আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে

শেয়ার করুন
  • 21
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নাইমুল ইসলাম : আমরা ‘ক’ জন এর উদ্যোগে রবিবার কলকাতার “যক্ষ্মা নিবারণী সেবা সমিতির” কক্ষে বাংলার সংখ্যালঘু সমাজের তরুণ উদ্যোমী বুদ্ধিভিত্তিক চর্চার সঙ্গে যুক্ত আছেন এমন বেশ কয়েকজন খোলা -মেলা আলোচনায় অংশ নেন । দেশ ও রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে মুসলিম সমাজের করনীয় কী তা নিয়ে মূল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় ।

আর সেই আলোচনা থেকে উঠে আসে নতুন সংগঠনের ভাবনা। প্রশ্ন ওঠে রাজ্যে মুসলিমদের অসংখ্য সংগঠন আছে তারপর কেন নতুন সংগঠনের কথা ভাবা হচ্ছে । উত্তর আলোচনায় উঠে আসে, প্রায় সব বক্তায় বলেন, এক এক করে আলাদা আলাদা চিন্তা-ভাবনা না করে সকলে মিলে সম্মিলিতভাবে কোনো কাজ করলে সাফল্য দ্রূত পাওয়া যাবে । তাই সংগঠন নয় , সকলের জন্য মুক্ত মঞ্চ গড়ে তোলার লক্ষ্যেই ভবিষ্যতে সংগঠন গড়ার মূল উদ্দেশ্য বলে আয়োজকরা মন্তব্য করেন।  বিভিন্ন সংগঠনকে একত্রিত করার লক্ষ্যে আগামী ২৮ অক্টোবর নয়া সংগঠনটি আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে । সূত্রের খবর,সংগঠনের নামকরণ প্রায় সম্পূর্ণ খুব শীঘ্রই রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে।

উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন অস্থায়ী কনভেনার ইফতিকার হোসেন তিনি বলেন ” আমরা যে সংগঠনটি আত্মপ্রকাশ করতে চলেছি তার উদ্দেশ্য হল অন্য সংগঠনে খোলামেলা  মত প্রকাশ করতে পারে না কিন্তু এই সংগঠনে খোলামেলা মত প্রকাশ করতে পারবে । সেই সঙ্গে  পশ্চিম বাংলার বিভিন্ন সংখ্যালঘু সংগঠনের নেতাদের নিয়ে একটি মঞ্চ’ গঠন করার চেষ্টা করা হবে ।

অন্যতম আহ্বায়ক শেখ গোলাম মইনুদ্দিন বলেন,” যাদের কথা বলার ইচ্ছা থাকা সত্বেও বলতে পারে না তাদের জন্য এই সংগঠন ও এই সংগঠন কারো ব্যক্তি কেন্দ্রিক নয় খুব শীঘ্রই আমরা মাঠে নেমে কাজ করবো।”

উক্ত সভায় বিশিষ্ট ব্যক্তি হিসেবে ছিলেন  এই সংগঠনের অস্থায়ী চেয়ারম্যান প্রাক্তন মাদ্রাসা ছাত্র আন্দোলনের নেতা মাওলানা মোজাফফর হোসেন ও ফজলুর রহমান,আজিবুর রহমান ,আব্দুল মোমেন, সমাজসেবী আকবর আলী খান , নাবাবিয়া মিশনের সম্পাদক সাহিদ আকবর, গোলাম আম্বিয়া , মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ , শিক্ষক ও সাংবাদিক সেখ ইবাদুল ইসলাম প্রমুখ।


শেয়ার করুন
  • 21
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment