জেলা 

ইসলামপুরে পুড়ল বাস, নিহত ছাত্রের বাড়িতে যাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী

শেয়ার করুন
  • 27
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জামিতুল ইসলাম : বিজেপির ডাকা ১২ ঘণ্টা বনধে একাধিক বাসে ভাঙচুর ও আগুন ধরানো হল ইসলামপুরে৷ বন্ধ রয়েছে দোকানপাট৷ দুই একটি সরকারি বাস চললেও রাস্তায় দেখা যায়নি কোন বেসরকারি বাস। সকাল থেকেই বনধের সমর্থনে রাস্তায় নেমেছেন বিজেপি কর্মীরা৷ পুলিশের সঙ্গে বনধ সমর্থকদের খণ্ডযুদ্ধের খবর পাওয়া গেছে। বনধ সমর্থনকারীদের হঠাতে টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছোঁড়ে পুলিশ৷ বিভিন্ন স্থানে রাস্তা অবরোধ হয়েছে৷ কড়া নিরাপত্তায় ঘিরে রাখা হয়েছে ইসলামপুর-সহ বিস্তীর্ণ এলাকা৷ চলছে পুলিশের টহলদারী৷ রাস্তায় নেমেছে ব়্যাফ৷ এছাড়া গোটা উত্তর দিনাজপুর জেলাজুড়ে বনধের মিশ্র প্রভাব দেখা গিয়েছে ৷ এমন পরিস্থিতিতে ইসলামপুরে নিহত ছাত্রদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ সূত্রের খবর, সেখানে একটি জনসভাও করতে পারেন তিনি৷


বৃহস্পতিবার থেকেই রণক্ষেত্র হয়ে উঠেছে উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর ৷ গুলিতে মৃত্যু হয়েছে রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মন নামের এই দুই ছাত্রের। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, দাঁড়িভিট স্কুলের নিরীহ ছাত্রদের উপরে গুলি চালিয়েছে পুলিশ ৷ যদিও জেলা পুলিশের তরফে স্পষ্ট বিবৃতি জারি করে জানান হয় যে, তাদের পক্ষ থেকে গুলি চালানো হয়নি ৷ কিন্তু পুলিশের কোনও বিবৃতিই মানতে নারাজ গ্রামবাসীরা৷ ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য ইতিমধ্যে সিবিআই তদন্তের দাবি তুলেছেন মৃত দুই ছাত্রের পরিবার ও গ্রামবাসীরা ৷

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই আজ ১২ ঘন্টার বাংলা বনধের ডাক দিয়েছে রাজ্য বিজেপি৷ মিশ্র প্রতিক্রিয়া রাজ্যের অন্যান্য অংশে পড়লেও, বনধের ব্যাপক প্রভাব পড়েছে ইসলামপুরে৷ ডালখোলা, মল্লিকপুর, মিঠাপুর, রেলগেট-সহ উত্তর দিনাজপুরের বিভিন্ন এলাকায় বনধের সমর্থণকারী বিজেপি কর্মীরা অবরোধে বসেন৷ ৩১ নং জাতীয় সড়কও অবরোধের চেষ্টা করেন বিজেপি সমর্থকরা। শ্রীকৃষ্ণপুরে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় বনধের সমর্থনকারীদের৷ এলাকায় উত্তেজনা থাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী৷ চলছে ব়্যাফের টহলদারি৷ সূত্রের খবর, বুধবারই ইসলামপুরে যাচ্ছেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। নিহত দুই ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মনের বাড়িতে যাওয়ার কথা রয়েছে তাঁর। এছাড়া একটি জনসভাও করতে পারেন মন্ত্রী।


শেয়ার করুন
  • 27
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment