কলকাতা 

বাংলার জনরব-এর খবরেই শিলমোহর এআইসিসি-র, সোমেন মিত্রের হাতেই প্রদেশ কংগ্রেসের দায়িত্ব দিলেন সোনিয়া-রাহুল, এবার কী প্রদেশ কংগ্রেসের ঘুরে দাঁড়ানোর পালা ?

শেয়ার করুন
  • 17
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সেখ ইবাদুল ইসলাম : বাংলার জনরব গত জুন মাসের ৪ তারিখে খবর করেছিল প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতির দৌড়ে এগিয়ে সোমেন মিত্র । সেদিন স্পষ্ট ভাষায় বাংলার জনরব বলেছিল, প্রদেশের দায়িত্ব পেতে চলেছেন সোমেন মিত্র ।শুধু মাত্র ঘোষণা টুকু বাকী । অনেকে বিশ্বাস করেননি ,অনেকে বিশ্বাস করেছেন । বারবার ফোন করে জিঞ্জাসা করেছেন সোমেন মিত্র কবে প্রদেশের দায়িত্ব পাচ্ছেন ? আমরা স্পষ্ট বলেছিলাম দায়িত্ব উনিই পাবেন , আর কেউ না । না হলে অধীর চৌধুরিই প্রদেশ সভাপতি থাকবেন । প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি যদি বদল হয় তাহলে সোমেনের হাতেই সেই দায়িত্ব যাচ্ছে ।

প্রত্যাশামত সোমেনের হাতে গেল প্রদেশ কংগ্রেসের গুরু দায়িত্ব । শুক্রবার এআইসিসি-র পক্ষ থেকে প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হল প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি হয়েছেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সোমেন মিত্র । একই সঙ্গে অপসারিত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরিকে ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনের প্রচার কমিটির সভাপতি করা হয়েছে । সহ-সভাপতি হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে , সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরি , নেপাল মাহাতো, শংকর মালাকার , দীপা দাশমুন্সিকে । আর প্রদেশ কংগ্রেস সম্বন্বয় কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছেন সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যকে।

সোমেন মিত্র এর আগে প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৮ পর্যন্ত। তিনি সভাপতি থাকাকালীনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে এসে তাঁর নতুন দল তৃণমূল কংগ্রেস তৈরি করেন।

তিনি প্রদেশ  কংগ্রেসের সভাপতি থাকাকালীন সময়ে কংগ্রেস সাংগঠনিকভাবে সবচেয়ে শক্তিশালী ছিল । কিন্ত ১৯৯৮ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ায় দল অনেকটাই দূর্বল হয়ে পড়ে । কয়েক দিন আগেই বাংলার জনরব-এ সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ ও প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি সোমেন মিত্র বলেছিলেন , আমি দায়িত্ব ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার লোক নই । কংগ্রেস একটা পরিবার সবাইকে যথাযথ সম্মান দিলে কংগ্রেস অবশ্যই শক্তিশালী হবে । সোমেন মিত্র শুধুমাত্র একজন কংগ্রেস নেতা নন, তিনিই এই মুহুর্তে পশ্চিমবাংলার রাজনীতিতে সিদ্ধার্থশংকর রায়ের পর ধর্মনিরপেক্ষ নেতা হিসেবে জনপ্রিয় । সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে সোমেন মিত্রের গ্রহণযোগ্যতা প্রশ্নাতীত । এহেন একজন নেতার হাতে দায়িত্ব তুলে দিয়ে সোনিয়া-রাহুল গান্ধী যে দূরদর্শীতার পরিচয় দিয়েছেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না ।

 


শেয়ার করুন
  • 17
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment