কলকাতা 

কলকাতার ১৫ টি সেতুর মধ্যে ১১টি অবস্থা খুবই খারাপ , রাজ্যের যেকোনো প্রান্তে সেতুর অবস্থা খারাপ হলে সরাসরি হোয়াটসঅ্যাপে অভিযোগ করা যাবে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : সেতুর হাল এবার সরাসরি পর্যবেক্ষণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম । রাজ্যের যেকোনো প্রান্তে সেতুর অবস্থা খারাপ দেখলেই সরাসরি মন্ত্রী হোয়াটসঅ্যাপে ছবি সহ সেতুর বিবরণ পাঠিয়ে দিলেই কেল্লাফতে । সঙ্গে সঙ্গে নাকি সরকারি আধিকারিক ওই সেতুর কাছে পৌছে যাবে । এমনই বার্তা বৃহস্পতিবরা দিলেন রাজ্য মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ।

আজ কলকাতার বেহাল ১১টি সেতু পরিদর্শনে যান রাজ্যের পৌর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। সেতু পরদর্শনের মধ্যেই তিনি এবিষয়ে জানান। তবে শুধুই খারাপ হালের তথ্য নয়, বেহাল সেতুর ছবিও মন্ত্রীকে হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো যাবে। এই জন্য একটি হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর দেন ।সেই নম্বর হল ৯৮৩০০৩৭৪৯৩। এছাড়া মন্ত্রী আরও জানান, শহরের প্রতিটি সেতুতে একটা করে বোর্ড লাগানো থাকবে। তাতে সেতুর সংস্কারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থার নাম ও ইঞ্জিনিয়রের নাম লেখা থাকবে। সেই নম্বরে ফোন করেও অভিযোগ জানানো যাবে।

মাঝেরহাটে সেতু ভেঙে পড়ার পরই সম্প্রতি সরকারের গঠন করা বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রাথমিক অনুসন্ধান রিপোর্ট তৈরি হয়। আপাতত ১৫টি সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন বিশেষজ্ঞরা। রোগ ধরা পড়েছে ১১টি-তেই। রিপোর্ট দেখে চমকে উঠেছেন প্রশাসনের অনেক কর্তা। সেই জন্য আজ সকালেই বেহাল সেতুগুলি পর্যবেক্ষণে যান মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। কালীঘাট সেতুর অবস্থা দেখে দ্রুত মেরামতের সিদ্ধান্তের কথা জানান তিনি। নৌকা করে জলে নেমে কালীঘাট সেতু পরিদর্শন করার পর তিনি বলেন, “কালীঘাট ব্রিজের অবস্থা ভালো নয়। তিনদিনের মধ্যে কাজ শুরু হবে। ১৫ দিনের মধ্যে কাজ শেষ করা হবে।”

এরপর মন্ত্রী যান বিজন সেতু পর্যবেক্ষণে। বিজন সেতুর বিভিন্ন জায়গা থেকে চাঙড় খসে পড়েছে। এই সেতুও মেরামত করে নতুন রং হবে বলে জানান মন্ত্রী। বলেন, “মূল সমস্যা হচ্ছে ইঁদুরের গর্ত। তাই সেতুটির আরও পরীক্ষার প্রয়োজন। দ্রুত টেন্ডার ডেকে মেরামত করা হবে।” এছাড়া, বাঘাযতীন রেল ব্রিজ দেখার পর সেটিও মেরামত করা হবে বলে তিনি জানান। শিয়ালদা সেতুর প্রসঙ্গে বলেন, “ব্রিজের অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। ব্রিজ পরীক্ষা করতে গেলে দোকানদারদের সরে যেতে হবে। লোহা পিটিয়ে, ব্রিজ ফুটো করে ক্যামেরা দিয়ে অবস্থা দেখতে হবে। দোকানদাররা আবেদন করেছেন পুজোর কটা দিন সময়ের জন্য। পুজোর পরই তাঁরা দোকান সরিয়ে দেবেন।”

 


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment