কলকাতা 

রাজ্য সরকারের নজীরবিহীন সিদ্ধান্ত ২৮ হাজার পুজো কমিটিকে ২৮ কোটি টাকা অনুদান ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : ইমাম-মোয়াজ্জেন ভাতা দেওয়ার ঘোষণা নিয়ে বিজেপি কটাক্ষ করতে এখন ছাড়েনি তৃণমূল সরকারকে । সেই ঘোষণার জন্য এখনও তৃণমূল নেতৃত্বকে নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় । এবার মুখ্যমন্ত্রী ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রে একটি বিশেষ ধর্মীয় সম্প্রদায়ের অনুষ্ঠানে অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করে নজীর সৃষ্টি করলেন বলা যেতে পারে।

রাজ্যের ২৮ হাজার পুজো কমিটিকে ১০ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে কলকাতা পুলিশ ও পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে সমন্বয় বৈঠকে এই ঘোষণা করেন তিনি। বলেন, “পুজোর জন্য কারও কাছ থেকে ভিক্ষা নেওয়ার প্রয়োজন নেই। কেউ যদি ভাবে টাকা দিয়ে কিনে নেব, তা যেন না করতে পারে।”

সোমবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামের এই সম্মেলন থেকে দুর্গাপুজোর প্রতিমা নিরঞ্জন, সম্প্রীতি রক্ষা‌ সহ একাধিক বিষয়ে পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, “১৯ অক্টোবর থেকে ২১ অক্টোবরের মধ্যে দুর্গাপ্রতিমা নিরঞ্জন দিতে পারবে পুজো কমিটিগুলি। পুজো কার্নিভ্যাল হবে ২৩ অক্টোবর। গতবার মোট ৫০টি পুজো কমিটি কার্নিভ্যালে অংশ নিয়েছিল। এবারে অংশ নেবে ৭৫টি কমিটি।‌ শহরে ছোটো-বড় মিলিয়ে মোট তিন হাজার দুর্গাপুজো হয়। গ্রাম বাংলায় সব মিলিয়ে ২৫ হাজার পুজো হয়। সব মিলিয়ে এই সংখ্যাটা ২৮ হাজার। প্রতিটি পুজো কমিটিকেই ১০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। এজন্য সরকারের খরচ হবে ২৮ কোটি টাকা।”

আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি পুজো কমিটিগুলিকে পুজোর অনুমোদন বা লাইসেন্স নিতে আর কোনও টাকা খরচ করতে হবে না বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। পুজো কমিটিগুলির থেকে লাইসেন্স ফি না নেওয়ার জন্য সিইএসসি, বিদ্যুৎ দপ্তর, কলকাতা পৌরনিগম, পঞ্চায়েত ও দমকল দপ্তরকে নির্দেশ দেন তিনি। বলেন, “সিইএসসি বিদ্যুৎ খাতে ১৮ থেকে ২০ শতাংশ ছাড় দিয়ে থাকে। এবার ২০ থেকে ২৩ শতাংশ ছাড় দেবে।”

এছাড়া নাম না করে বিজেপিকে কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বাইরের কেউ যদি দুষ্টুমি করে, যদি লোভ দেখায়, আত্মসমর্পণ করবেন না। পুজো করার জন্য কারও কাছে ভিক্ষা চাইবেন না। কেউ যদি মনে করে পুজো কমিটিগুলিকে টাকা দিয়ে কিনে নেব, তা যেন না পারে।”


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment