কলকাতা 

মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে ডাকা বনধের দিনে গাড়ি-ভাঙচুর হলে ক্ষতিপূরণ দেবে মমতা সরকার

শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে কংগ্রেস ও বামেদের ডাকা বনধকে ব্যর্থ করতে এবার বেনজীর সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। বনধে গাড়ি ভাঙচুর হলে ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য সরকার। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অভিযোগ দায়ের করলে ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। বিমার টাকা থেকেই এই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। নজিরবিহীন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের পরিবহণ দফতর।

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতি ও অস্বাভাবিকহারে মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এই বনধ ডাকেন। কংগ্রেস সভাপতি আহ্বানে অনেক কট্টর বামপন্থী দলও সমর্থন করলেও , মোদী বিরোধী প্রধান মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়  কট্টর বিজেপি বিরোধী হলেও এই বনধকে তিনি সমর্থন করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

বনধ বিরোধিতার প্রশ্নে অটল থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং জানিয়ে দেন, বনধের দিন সরকারি কর্মীদের অর্ধদিবস ছুটিও মঞ্জুর হবে না। উপযুক্ত কারণ ছাড়া অনুপস্থিত থাকলে বেতন কাটা যাবে। এরপর পরিবহণ দফতরও বেনজীর সিদ্ধান্ত নিয়ে জানিয়ে দিল, গাড়ি ভাঙচুর হলে মিলবে ক্ষতিপূরণ। ফলে শাসকদলের বনধ-বিরোধিতা সত্ত্বেও রাস্তাঘাটে গাড়ি-ঘোড়া অনেক কম থাকে। এবার সেই সমস্যা দূর করতে গাড়ি মালিকদের প্রতি বার্তা দিল রাজ্যের সরকার। পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ঘোষণা করেন, বনধের দিনে রাস্তায় বেরিয়ে গাড়ি ভাঙচুর হলে সরকার পাশে দাঁড়াবে।
রাজনৈতিক মহল মনে করছে এ ধরনের উদ্যোগ নজিরবিহীন। আগে সরকারি কর্মীদের উপস্থিতি ও ছুটি নিয়ে কড়া মনোভাব পোষণ করলেও এবার গাড়ি ভাঙচুরে সরকার নমনীয় হল বনধ ব্যর্থ করার এই পদক্ষেপে। উল্লেখ্য, পেট্রোপণ্যে মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সোমবার বনধের ডাক দিয়েছে কংগ্রেস। বামেরাও আলাদা করে বনধ ডেকেছে। কার্যত কংগ্রেসকে সমর্থনের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বামেরা।

তবে তৃণমূল কংগ্রেসের এই বনধ বিরোধিতা যে আগামী দিনে মোদী বিরোধী রাজনীতি ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে তা বলাই বাহুল্য । তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সোমবারের কংগ্রেসের ডাকা বনধের বিরোধিতা করে নিজেকে মোদী বিরোধিতা প্রধান মুখ থেকে সরিয়ে নিলেন বলে ওয়াকিবহাল মহল মনে করছেন।


শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment