আন্তর্জাতিক 

আবেদনের ৬ মাস পরেও কোভ্যাক্সিনকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এখনো দিলো না বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা WHO

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক: কোভ্যাক্সিনকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির দিলো না বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা WHO। ফলে ভারত বায়োটিক নির্মিত এই ভ্যাকসিন অনুমোদন পেল না বলে মনে করা হচ্ছে। এই কারণে যারা এই ভ্যাকসিন নিয়েছেন তারা ভারতের বাইরের দেশে এখনই যেতে পারবে না ।গত এপ্রিলে আপৎকালীন পরিস্থিতিতে প্রয়োগের জন্য অনুমোদনের আবেদন করেছিল ভারত বায়োটেক। কিন্তু ৬ মাস পেরিয়ে গেলেও অনুমোদন অমিলই রইল।

মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রযুক্তিগত পরামর্শদাতাদের দল ভারত বায়োটেকের জমা দেওয়া তথ্য পর্যালোচনা করে। পরে ওই সংস্থাকে মেল করে আরও তথ্য চাওয়া হয়। রিস্ক-বেনেফিট অ্যাসেসমেন্টের জন্য়ই ওই অতিরিক্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে। দ্রুত সেই তথ্য হাতে এসে গেলে এরপর ৩ নভেম্বর ফের চূড়ান্ত তথ্য যাচাই হবে বলে জানা গিয়েছে।

হু এর আগে ভারতে তৈরি কোভিশিল্ড-সহ মডার্না, ফাইজার, জনসন অ্যান্ড জনসন, সিনোফার্ম এবং সিনোভ্যাক করোনা টিকাকে অনুমোদন দিয়ে দিয়েছে। কিন্তু নানা জটিলতায় আটকে রয়েছে কোভ্যাক্সিনের অনুমোদন। কিন্তু কেন এত দেরি হচ্ছে অনুমোদন পেতে? এপ্রসঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক কর্মী আগেই জানিয়েছিলেন, কোনও টিকার পুরোপুরি মূল্যায়নের জন্য প্রক্রিয়া সাধারণত দীর্ঘই হয়। নানা দিক দিয়ে তথ্য যাচাই করার পর তবেই অনুমোদন দেওয়া হয়। আসলে কোনও টিকার ক্ষেত্রে তার গুণগত মান, সুরক্ষা, কার্যকারিতা-সহ নানা দিক পর্যালোচনা করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দাবি করেছিলেন কোভ্যাক্সিনের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দ্রুত পাওয়া যাবে। এমনকি তিনি নিজেও এই ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। তার পরেও প্রায় ছমাস কেটে গেলেও এখনো পর্যন্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই ভ্যাকসিন এর স্বীকৃতি দেয়নি। ফলে জটিলতা তৈরি হচ্ছে। দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি করা ভ্যাকসিনের স্বীকৃতি নিয়ে জটিলতা তৈরি হওয়ার কারণে মোদি সরকার কে অস্বস্তিতে পড়তে হচ্ছে।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ