কলকাতা 

রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনা নিয়ে দূর্নীতির অভিযোগ যৌথ সংসদীয় কমিটি গঠন করে তদন্ত করার দাবি জানালেন কংগ্রেস নেতা সোমেন ও আমজাদ, রাজ্যজুড়ে আন্দোলনে নামছে কংগ্রেস

শেয়ার করুন
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী আন্দোলনের রূপরেখা তৈরি করে দিয়েছেন । তিনি সম্প্রতি এক সভায় জানিয়ে ছিলেন রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনার দূর্নীতি নিয়ে রাস্তায় নেমে আন্দোলন করবে কংগ্রেস । সমগ্র দেশজুড়ে এবিষয়ে কংগ্রেস আন্দোলন শুরু করে দিয়েছে । এমনকি প্রতিটি রাজ্যে কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় নেতারা হাজির হয়ে সাংবাদিক সম্মেলনের মধ্য দিয়ে রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনার ক্ষেত্রে যে দূর্নীতি হয়েছে তার তথ্য প্রমান সহ পেশ করা হচ্ছে  ।সম্প্রীতি কলকাতায় এসে দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি,চিদাম্বরম রাফাল বিমান কেনার দূর্নীতি নিয়ে সরব হয়েছেন।

কিন্ত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি এখনও পর্যন্ত রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনার দূর্নীতি নিয়ে তেমনভাবে সরব হননি। এমনকি যেদিন পি.চিদাম্বরম কলকাতায় এসে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে মোদী সরকারের দূর্নীতি নিয়ে সরব হচ্ছেন, সেদিনও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিকে এনিয়ে সরব হতে দেখা যায়নি। তবে এবার এবিষয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুললেন প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। তিনি আজ কলকাতা  প্রেস ক্লাবে রাফাল দূর্নীতি নিয়ে মুখ খোলেন। সরাসরি মোদী সরকার চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেন, সাহস থাকলে রাফাল দূর্নীতি নিয়ে মোদী সরকার যৌথ সংসদীয় কমিটি গঠন করে তদন্ত করুক । তাতে স্পষ্ট হবে স্বচ্ছতা। প্রদেশ কংগ্রেস লিটারেলী সার্কেলের পক্ষ থেকে এদিনে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংগঠনের অন্যতম নেতা বিশিষ্ট আইনজীবী সরদার আমজাদ আলী বলেন, ২০১২ সালে ইউপিএ সরকারের আমলে রাফাল যুদ্ধ বিমান কেনার চুক্তি হয়েছিল ।

কিন্ত দেখা গেল, মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর সেই চুক্তি বাতিল করে দেওয়া হয়। তারপর আবার কয়েক মাস পর দেখা গেল রাফাল বিমান চুক্তি করা হচ্ছে আগের চুক্তির চেয়ে তিনগুণ অর্থ বেশি দিয়ে । সবচেয়ে বিস্ময়ের বিষয় হল,যে কোম্পানীকে এই যুদ্ধ বিমান কেনার বরাত পাইয়ে দেওয়া হয়েছে তার এ বিষয়ে কোন অভিঞ্জতা নেই। অথচ ইউপিএ সরকারের আমলে এই বিমান কেনার বরাত দেওয়া হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিরক্ষা সংক্র্রান্ত এক সংস্থাকে । তিনি প্রশ্ন তোলেন, সরকারী সংস্থাকে বাদ দিয়ে কেন আম্বানীদের নতুন কোন সংস্থা বরাত দেওয়া হল কেন ? আর কত টাকায় এই যুদ্ধ বিমান কেনা হচ্ছে তার কোন সদুত্তর বিজেপি সরকার দিচ্ছে না ?

প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, মোদী নিজে বলে থাকেন তিনি দেশকে স্বচ্ছ করবে। আর এই স্বচ্ছতা নিজের মন্ত্রীসভা থেকে শুরু করতে হবে। সৎ সাহস থাকলে নিরপেক্ষ কোন এজেন্সী দিয়ে তদন্ত করতে পারে। তিনি আরও বলেন, রাফাল যুদ্ধ বিমান কেলেংকারী নিয়ে পথে আন্দোলন করবে প্রদেশ কংগ্রেস লিটারেলী সার্কেল। রাজ্যের সব জেলাতেই রাফাল নিয়ে প্রচার শুরু করবেন তিনি। খোদ কলকাতা শহরেই একাধিক সভা হবে বলে জানা গেছ ।


শেয়ার করুন
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment