কলকাতা 

জাতীয় গণিত দিবসে রাজ্যে স্কুল পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে অনুসন্ধানের নয়া কর্মসূচি ‘গণিত প্রতিভা অন্বেষা’

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নায়ীমুল হক:মহামতি গোপালকৃষ্ণ গোখলের সে কথাই ঠিক, আজ বাংলা যা ভাবে অবশিষ্ট ভারত তা ভাবে আগামীকাল।

করোনার বিপদ এখনও কাটেনি। তবু, তার-ই মাঝে বাংলার ছাত্র ছাত্রীদের নিয়ে শিক্ষার নানা অনুষঙ্গে যে তৎপরতা, তা লক্ষ করে অনায়াসেই গোখলের কথা মনে পড়িয়ে দিতে পারে।

গণিতের মহাবিস্ময় শ্রীনিবাস রামানুজনের জন্মদিন বাইশে ডিসেম্বর উপলক্ষে পালিত হয় জাতীয় গণিত দিবস। এবছর এই দিনটিকে নানাভাবে স্মরণীয় করে রাখতে তৎপর হয়েছেন রাজ্যের বেশ কিছু গণিত শিক্ষক-শিক্ষিকা, অবশ্য তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন অন্যান্য বিষয়ের শুধু শিক্ষকেরাই নন, শিক্ষা অনুরাগীরাও।

অনুসন্ধান কলকাতার উদ্যোগে আগামী ১২ থেকে ২২ ডিসেম্বর বেশ কিছু কর্মসূচি নেওয়ার কথা জানালেন অনুসন্ধানের সহ-সম্পাদক বিশিষ্ট গণিত শিক্ষক গৌরাঙ্গ সরখেল। তিনি জানিয়েছেন আজ শুক্রবার বিকেলে মূলত গণিত শিক্ষকদের নিয়ে অনলাইন এক বৈঠকে স্থির হয়েছে “গণিত প্রতিভা অন্বেষা” নাম দিয়ে রাজ্যব্যাপী আগামী ১২ ডিসেম্বর একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে। বাংলা-ইংরেজি মাধ্যমের ছাত্র-ছাত্রীরা এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে। চতুর্থ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত বিভিন্ন বিভাগে অনুষ্ঠিত হবে এই প্রতিযোগিতা। স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যের কোনায় কোনায় গণিতের প্রতিভা কোথায় কীভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে, তার অন্বেষা করাই হচ্ছে এই প্রতিযোগিতার মূল উদ্দেশ্য, একথা বলে এদিনের অনুষ্ঠান শুরু করেন জনপ্রিয় গণিত শিক্ষক তথা পশ্চিমবঙ্গ কেন্দ্রীয় স্কুল সার্ভিস কমিশনের পরামর্শদাতা ড. পার্থ কর্মকার। প্রশ্নের ধরন-ধারণ, প্রশ্নের মান, কতক্ষণ সময় নির্ধারণ করা উচিত – সমস্ত বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন উপস্থিত বিশিষ্ট শিক্ষকরা। সমস্ত বিষয়টি নিরীক্ষণ করার জন্য এদিন একটি কমিটি গঠন করা হয়। এছাড়াও সম্পূর্ণ পরীক্ষা অনলাইনে এবং গুগল অ্যাপ মারফত করার কথা জানায় অনুসন্ধানের টেকনিক্যাল টিম। খুব সহজেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের ছাত্র-ছাত্রীরা এভাবে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে বলে মতামত ব্যক্ত করেন মালদা জেলার বিশিষ্ট শিক্ষক ড.কমল কৃষ্ণ দাস।

এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ছাত্রছাত্রীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিতে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থাকতে সম্মত হয়েছেন বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ অধ্যাপক আইজ্যাক সুবর্ণ বারি। এছাড়াও শিক্ষক-ছাত্রদের সমন্বয়ে আরও একটি ওয়েবিনার করার তোড়জোড় শুরু হয়েছে বলে জানান বিশিষ্ট বিজ্ঞানী অনুসন্ধানের চিফ অ্যাডভাইজার অধ্যাপক মতিয়ার রহমান খান।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ