কলকাতা 

গড়িয়াহাটে ব্যবসায়ী খুনের কিনারা অনেকটাই করে ফেলল কলকাতা পুলিশ, ডায়মন্ডহারবার থেকে গ্রেফতার মিঠু হালদার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : গড়িয়াহাটের ব্যবসায়ী খুনের অনেকটাই কিনারা করে ফেলল কলকাতা পুলিশ । গতকাল ডায়মন্ডহারবার থেকে গ্রেফতার করা হয় মিঠু হালদার নামে এক পরিচারিকাকে । এই পরিচারিকা সরাসরি হত্যাকান্ডের সঙ্গে যুক্ত কিনা তা খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দারা । তবে এটা স্পষ্ট যে, এই পরিচারিকা কর্পোরেট কর্তা সুবীর চাকীকে হত্যা করা থেকে শুরু করে হত্যাকারীরা কোনপথে পালাবে, তার সবই পরিকল্পনা করেন তিনি । গতকালই বিকেলে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে । এরফলে তদন্ত প্রক্রিয়া আরও গতি পাবে বলে গোয়েন্দারা মনে করছেন।

পুলিশ সূত্রে খবর, মিঠু পেশায় পরিচারিকা। ডায়মণ্ড হারবারের এক শিক্ষকের বাড়িতে গৃহকর্মে সাহায্য করতেন। ব্যক্তিগত ভাবে কর্পোরেট কর্তা সুবীর চাকী বা তাঁর ড্রাইভার রবীন কাউকেই চিনতেন না। কোনও দিন তাঁদের মুখোমুখি হননি। কিন্তু তদন্তকারীদের অনুমান, সুবীরকে হত্যা করা থেকে শুরু করে হত্যাকারীরা কোন পথে পালাবে, তার সবই পরিকল্পনা করেন তিনি। বুধবার বিকেল চারটের সময় ওই পরিচারিকাকে তাঁর ডায়মণ্ড হারবারের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। জেরায় খুনের ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন তিনি।

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, গত রবিবার মিঠুর ছেলে ভিকি এবং তাঁর বন্ধুরা কাঁকুলিয়ার সুবীরের বাড়িতে হাজির হন। বাড়ি কেনার নাম করে দেখা করেন সুবীরের সঙ্গে। পরে সেই বাড়িরই দোতলার ঘরে রক্তাক্ত অবস্থায় পাওয়া যায় সুবীরের দেহ এবং তিন তলার ঘর থেকে উদ্ধার হয় তাঁর ড্রাইভার রবীনের দেহ।

বুধবার মিঠুর ডায়মণ্ড হারবারের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে বেশ কয়েকটি রক্তমাখা পোশাক উদ্ধার করে পুলিশ। ওই পোশাক ভিকি এবং তাঁর সঙ্গীদের বলেই পুলিশের সন্দেহ। মিঠু যে বাড়িতে ভাড়া থাকেন, সেই বাড়ির মালিক জানিয়েছেন, দু’দিন আগে ওই রক্তলাগা পোশাক মিঠুকে কাচতে দেখেছিলেন তিনি। প্রশ্ন করায় মিঠু তাঁদের বলেছিলেন, ‘‘ছেলে পুজোয় মারপিট করেছে। তাতে জখম হওয়ায় রক্ত লেগেছে পোশাকে।’’ বু

বুধবার মিঠুকে গ্রেফতার করার পর টানা জেরা করেন তদন্তকারীরা। প্রথমে ঘটনাটি ছেলের মুখে শুনেছেন বলে দাবি করলেও পরে জেরায় মিঠু স্বীকার করে নেন, সুবীরকে হত্যার ষড়যন্ত্রে তিনি প্রথম থেকেই জড়িত ছিলেন। এমনকি সুবীরকে খুন করার পর ভিকি এবং তাঁর সঙ্গীরা যে বালিগঞ্জ স্টেশন থেকে ট্রেন ধরে পালাবেন, সেই উপায়ও বাতলেছিলেন মিঠুই।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ