কলকাতা 

পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী ধর্মীয় উস্কানি দিচ্ছেন এবং ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দিয়েছেন বলে অভিযোগ করে কলকাতা পুলিশের দ্বারস্থ বিজেপি

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক: বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক অশান্তির ঘটনা নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা ও ইন্ডিয়ান সেকুলার প্রতিষ্ঠাতা আব্বাস সিদ্দিকী। কিন্তু তা সত্ত্বেও তিনি বিতর্ক এড়াতে পারলেন না। জানা গেছে সম্প্রতি তার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সেখানে নাকি তিনি সাম্প্রদায়িক কথাবার্তা বলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে লালবাজারে পুলিশ কমিশনারের কাছে অভিযোগ দায়ের করলেন বিজেপি নেতা তরুণ জ্যোতি তেওয়ারি।সাম্প্রদায়িক উসকানি এবং ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করা – এই দুই ধারায় তিনি মামলা দায়ের করেছেন আব্বাসের বিরুদ্ধে।

রবিবারই বাংলাদেশে ঘটে চলা সাম্প্রদায়িক অশান্তির নিয়ে লিখিত বিবৃতি জারি করেছিলেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা তথা বামফ্রন্টের দোসর ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের (ISF) প্রতিষ্ঠাতা আব্বাস সিদ্দিকি। তাতে তিনি স্পষ্ট লিখেছিলেন, ”অপরাধীদের কোনও ধর্ম হয় না।” বিবৃতিতে যেমন পবিত্র কোরান অবমাননার অভিযোগের নিন্দা করেছিলেন, একইভাবে হিন্দু মন্দির ভাঙচুর এবং পুজোমণ্ডপে হামলারও প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন আব্বাস।

তবে আব্বাস সিদ্দিকির ভূমিকা নিয়ে এবার আইনের দ্বারস্থ হল বিজেপি। রবিবার রাতেই কলকাতার পুলিশ কমিশনারের কাছে ১৫৩এ এবং ২৯৫এ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বিজেপি নেতা তরুণজ্যোতি তিওয়ারি। আব্বাসের মন্তব্য একজন হিন্দু হিসেবে তাঁর খারাপ লেগেছে বলে দাবি জানিয়ে ফেসবুক পোস্টও (Facebook post) করেন তরুণজ্যোতি। পোস্টে তিনি স্পষ্ট লিখেছেন, আব্বাসের মন্তব্য পশ্চিমবঙ্গের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, শান্তির পরিবেশ বিনষ্ট করতে পারে। একজন হিন্দু হিসেবে তিনি এ নিয়ে সতর্ক এবং সেই সতর্কতা থেকেই পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাচ্ছেন। পুলিশ কমিশনারের কাছে তাঁর আবেদন, ১৫২এ অর্থাৎ সাম্প্রদায়িক উসকানি ও ২৫৩এ অর্থাৎ ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত – এই দুই ধারায় তাঁর দায়ের করা মামলাকে এফআইআর হিসেবে গণ্য করা হোক।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ