কলকাতা 

মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে পড়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে সরাসরি কাঠগড়ায় তুললেন বিজেপি নেতা মুকুল-রাহুল-বিজয়, রাজনীতি নয় এখন উদ্ধার কাজ করতে হবে বললেন সিপিএম নেতা সুজন

শেয়ার করুন
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : মাঝের হাট ব্রিজ দুর্ঘটনার পর সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে  আক্রমন করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায় ।  মঙ্গলবার  বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, “এই ঘটনার জন্য মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্য সরকার পুরোপুরি দায়ী। তিনি শহরের সৌন্দর্যায়নের কথা বলছেন, অথচ পুরনো সেতুর রক্ষণাবেক্ষণে কোনও নজর নেই।”

ব্রিজ ভেঙে পড়ার কিছুক্ষণ পরই প্রতিক্রিয়া দিলেন তিনি । প্রাক্তন তৃণমূল নেতা ও বর্তমানে বিজেপি কেন্দ্রীয় কর্মসমিতির সদস্য মুকুল রায় বললেন, ”রাজ্য সরকার ও মুখ্যমন্ত্রী এই ব্রিজ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী।”শহরে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে সৌন্দর্যায়ন চলছে গত কয়েক বছর ধরে। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে কটাক্ষ করলেন মুকুল রায়। বললেন, ”ওরা বলছে শহরের সৌন্দর্যায়ন চলছে। কিন্তু, পুরনো জিনিসের সংরক্ষণের কথা কারও মনে নেই।” তাঁর মতে, এই ঘটনার পুরো দায় রাজ্য সরকারের নেওয়া উচিৎ।

এদিনের দুর্ঘটনার পর রাহুল সিনহাও প্রশ্ন তোলেন রক্ষণাবেক্ষণ নিয়ে। রাহুলবাবু বলেন রক্ষণাবেক্ষণ না হওয়ার ফলে যা হওয়ার তাই হয়েছে। কলকাতার আরও কিছু ব্রিজের অবস্থা খারাপ। ব্রিজের ধারণ ক্ষমতার থেকে বেশি ওজনের মাল নিয়ে গাড়ি প্রতিদিন যাতায়াত করছে। প্রশাসন খবর রাখে না। কিছু ব্রিজের অংশ ঝুলে পড়েছে। সাধারণ মানুষের চোখে পড়েছে। প্রশাসনের চোখে পড়ছে না।

রাহুলবাবু এদিন আরও বলেন, “রাজ্য সরকার দুর্নীতিগ্রস্ত, বিরোধী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের গ্রেফতার করতে বেশি সময় নেয় না। কিন্তু ভাঙাচোরা ব্রিজ সারাই করার কোন ইচ্ছে নেই।”তিনি, ঘটনার উপযুক্ত তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। রাজ্য বিজেপি সূত্রে খবর বৃহস্পতিবার কলকাতার মেগা মিছিলে মাঝেরহাট ব্রিজ দুর্ঘটনার ইস্যুটি নিয়ে স্লোগান তুলবেন পার্টি কর্মীরা। অন্যদিকে বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে পড়ার ঘটনায় সরাসরি রাজ্য সরকারকে দায়ী করেছে । উল্লেখ্য, মাঝেরহাট ব্রিজটি কলকাতা পোর্ট ট্রাষ্ট কর্তৃপক্ষ নির্মাণ করলেও এর রক্ষণাবেক্ষণের পুরো দায়িত্ব রাজ্য সরকারের পূর্ত দপ্তরের । তাই স্বাভাবিকভাবে রাজ্য সরকার এর দায় এড়াতে পারে না।

অন্যদিকে দূর্ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যান বাম পরিষদীয় দলের নেতা সুজন চক্রবর্তী । তিনি ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে বলেন, ব্রিজ ভেঙে পড়ার দায় কার সেই তরজা করার সময় এখন নয়, এখন মানুষকে উদ্ধার করতে হবে । প্রশাসনের সঙ্গে এলাকার বাম কর্মীরা উদ্ধার কাজে যোগ দিয়েছেন বলে সুজনবাবু সাংবাদিকদের বলেন।

উল্লেখ্য,মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ এই ব্রিজ ভেঙে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। ভেঙে পড়ে মাঝের হাটের ব্রিজের মাঝের অংশ। ব্রিজের উপর দিয়ে সেইসময় বেশ কিছু গাড়ি যাচ্ছিল। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত পাঁচজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে।

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment