বিনোদন, সংস্কৃতি ও সাহিত্য 

বিদ্রোহী কবি নজরুল ইসলামের প্রয়ান দিবস সাড়ম্বরে পালন করল ‘জিরো পয়েন্ট

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেখ আব্দুল মান্নান : প্রতিবারের মত এবারও বর্ধমান জেলার মেমারী ১ নং ব্লকের অডিটোরিয়ামে সশ্রদ্ধায় উদযাপিত হলো বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪৩ তম প্রয়াণ দিবস। সেখ আনসার আলি সম্পাদিত সাপ্তাহিক সংবাদপত্র ‘জিরো পয়েন্ট’ এর উদ্যোগে সম্মাননা, আলোচনা, আবৃতি ও গানে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় কবির প্রতি । কবির ভাতুষ্পুত্র কাজী মোয়াজ্জেম হোসেনের কবির প্রতিকৃতিতে মাল্যদান এবং জুলফিকার তিতাসের উদ্বোধনি সঙ্গীত ” মোরা একই বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু মুসলমান” দিয়ে শুরু হওয়া এদিনের অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন পত্রিকা সম্পাদক সেখ আনসার আলি।’একই বৃন্তে দুটি কুসুম’ বিষয়ক নির্ধারিত আলোচনা সভায় এদিন আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলার বিভাগীয় প্রধান ড.সুরঞ্জন মিদ্দে, ঢাকা বাংলাদেশের কবি মোহাম্মদ রবিউল হোসেন, পুর্ব বর্ধমানের তথ্য সাংস্কৃতিক আধিকারিক কুশল চক্রবর্তী, স্থানীয় বিধায়ক নার্গিস বেগম, মেমারি একের বিডিও বিপুল কুমার মণ্ডল, উপ পুরপিতা সুপ্রিয় সামন্ত, পুর সভাপতি অসিত মুদি, সহ সভাপতি মধূসুদন ভট্টাচার্য ও নিত্যানন্দ ব্যানার্জী।

মুখ্য আলোচক ড.সুরঞ্জন মিদ্দে নজরুল সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেন- নজরুলই একমাত্র সেই কবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে স্থিত যার সমাধিতে পুষ্পার্পণ করা হয়। তিনি বলেন নজরুলকে স্মরণ করা তখনই সার্থক হবে যখন তাঁর জীবনাচারনকে আমাদের মননে মজ্জায় লালিত পালিত হবে।তিনি আরো বলেন নজরুলের ভাবনা যেহেতু হিন্দু মুসলমান ছাড়িয়ে সারা বিশ্বকে নিয়ে, সেহেতু আজকের আলোচ্য বিষয় , একই বৃন্তে দুটি কুসুম’ এর পরিবর্তে ‘একই বৃন্তে বহু কুসুম’ হওয়াটা আশ্চর্যের নয়।
এদিন অনুষ্ঠানে জিরো পয়েন্টের তরফে ‘নজরুল অ্যাওয়ার্ড-২০১৮’ প্রদান করা হয় ড.সুরঞ্জন মিদ্দেকে। ‘জিরো পয়েন্ট অ্যাওয়ার্ড- ২০১৮’ প্রদান করা হয় কবি মোহাম্মদ রবিউল হোসেন (ঢাকা ), চন্দ্রনারায়ণ বৈরাগ্য,শরিফুল ইসলাম, বৃষ্টি মুখার্জী এবং ডা: গৌরাঙ্গ মুখোপাধ্যায়কে।

এছাড়া কবি নজরুলের উপর আয়োজিত কবিতা ও প্রবন্ধ প্রতিযোগিতার সফল প্রতিযোগীদেরও এদিন পুরস্কৃত করা হয়।কবিতায় প্রথম গোলাম মর্তোজা, দ্বিতীয় সনাতন মাজি, তৃতীয় যুগ্মভাবে সমীর দত্ত ও সৈয়দ সেরিনাকে পুরস্কৃত করা হয়। প্রবন্ধে পুরস্কৃত করা হয় প্রথম সামসুজ্জামান, দ্বিতীয় আশিষ মিত্র এবং তৃতীয় শেখ আব্দুর রবকে। একমাত্র আবৃতিকার লাবনী সিংহের পরিবেশিত ‘রাজ ভিখারি’ আবৃতি শ্রোতাদের মুগ্ধ করে দেয়। এদিন মঞ্চাসীন অতিথিরা সমবেতভাবে উদ্বোধন করেন স্মরণিকা ‘নজরুল উৎসব-২০১৮’। সব শেষে কবি নজরুলের উপর একটি তথ্যচিত্রও প্রদর্শিত হয়।ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানটি সুচারুরূপে সঞ্চালনা করেন বিশিষ্ট সংস্কৃতিপ্রিয় কমলেশ মণ্ডল।


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment