জেলা 

পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে রাজ্য জুড়ে সংঘর্ষ অব্যাহত পুরুলিয়ায় দুই বিজেপি কর্মীর মৃত্যু , মালদায় শাসকদল তৃণমূলের হাতে দুই তৃণমূল কর্মী খুন

শেয়ার করুন
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : পুরুলিয়ায় ঘাঘরায় পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে তৃণমূল বিজেপি-র কর্মী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয় । এই গন্ডগোল চলার সময় গুলিতে মৃত্যু হল দুই বিজেপি কর্মীর। একজনের নাম নিরঞ্জন গোপ অপরজনের নাম এখনও জানা যায়নি। বিজেপি দল অভিযোগ করেছে, পুলিশের গুলিতে তাঁদের মৃত্যু হয়েছে। নিরঞ্জনবাবু আবার ঘাঘরা গ্রাম পঞ্চায়েতে এবার বিজেপি দলের প্রার্থী হিসেবে জয়ী হয়ে ছিলেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ছয় বিজেপি কর্মী। তাঁদের জয়পুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে ।

উল্লেখ্য , পুরুলিয়ার ঘাঘরা পঞ্চায়েতের ১২টি আসনের মধ্যে ৮টি বিজেপি জোটের দখলে এবং ৪টি তৃণমূলের দখলে রয়েছে। সোমবার  বোর্ড গঠনের দিন তৃণমূল ও বিজেপি-র কর্মী- সমর্থকদের মধ্যে প্রথমে সংঘর্ষ বাধে । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী।

এরপর বিজেপি-র এক জয়ী সদস্যের কাস্ট সার্টিফিকেট নিয়ে বচসা শুরু হয় পুলিশ ও বিজেপি-র স্থানীয় নেতৃত্বের মধ্যে। ওই জয়ী সদস্য যে কাস্ট সার্টিফিকেটটা দেখান, পুলিশের তরফে দাবি করা হয় সেটি নকল। এরপর শুরু হয় বচসা। অভিযোগ, এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালায় পুলিশ এবং তখন গুলিতে মৃত্যু হয় নিরঞ্জনবাবুর। গুলি লেগে আহত হন আরও ৬ বিজেপি কর্মী। তাঁদের মধ্যে একজনের হাসপাতালে মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে,  সোমবার  মালদা জেলার মানিক চক থানার গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের দিন নির্ধারিত ছিল।পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন করাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক হিংসায় মৃত্যু হল দু’জনের। মৃতদের নাম সালাম শেখ (২০) ও আজহার শেখ(৬০)। গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে আজহারের। বোমাবাজিতে আহত ৩ বছরের এক শিশুও।  ঘটনাটি ঘটেছে মানিকচক ব্লকের গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের হুকুমতটোলা গ্রামে। বোমাবাজিতে আহত ওই শিশু বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।ঘটনার তদন্তে গ্রামে রয়েছে মানিকচক থানার পুলিশ।


শেয়ার করুন
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment