কলকাতা 

“রাফাল বিমান নিয়ে তিনগুণ অর্থ অতিরিক্ত খরচ করা হল কেন ? প্রশ্ন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি.চিদম্বরমের

শেয়ার করুন
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : লোকসভা নির্বাচনে  কেন্দ্রীয় সরকারের এই রাফাল চুক্তি ইস্যু  নিয়ে কংগ্রেস প্রচারে নামতে চলেছে ।  আজ কলকাতা সফরে এসে প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি. চিদম্বরম এই মন্তব্য করেন। তিনি এদিন বলেন, বেশি টাকা খরচ করে কেন এই চুক্তি করা হল, তার জন্য সরাসরি কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের কাছে জবাব চান তিনি। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে কংগ্রেস নেতা পি. চিদম্বরম বলেন, “আমরা এখন কোনওরকম আইনি পদক্ষেপ নিচ্ছি না। প্রথমে আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে জানতে চাইছি, তাঁরা কেন এই দুর্নীতি করলেন। জবাব দিন। আমার প্রশ্নের উত্তর দিন।”আজ প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে একটি সাংবাদিক বৈঠকে চিদাম্বরম প্রতিরক্ষামন্ত্রী উদ্দেশে প্রশ্ন তোলেন,”রাফাল বিমান নিয়ে তিনগুণ অর্থ অতিরিক্ত খরচ করা হল কেন ? কোনও নিয়ম কেন মানা হল না। এই চুক্তি নিয়ে সরকারের এত গোপনীয়তা কেন ? কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এবং‍ ক্যাবিনেটকে লুকিয়ে এটা করা হল কেন ? আমরা এর কারণ জানতে চাইব কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে।”

মনমোহন সিং সরকারের আমলে এই যুদ্ধবিমান কেনার ব্যাপারে আলোচনা শুরু হয়েছিল। তবে যে দামে বিমান কেনার কথা হয় তার থেকে বর্তমান সরকারের আমলে বেশি দামে কেনা হয় বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া তিনি আরও বলেন, “২০১২ সালের ১২ ডিসেম্বর  এই চুক্তি হয়েছিল। তখন শুধু ৫২৬ কোটি টাকায় এই চুক্তি হয়েছিল। এমনকী, ফ্রান্সের সঙ্গে আলাপ আলোচনা যখন হচ্ছে, সেই সময় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার কাছে গোটা বিষয়টি গোপন করা হয়েছিল কেন ? নতুন এই চুক্তির বিষয়ে অন্ধকারে রেখে দেওয়া হল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভাকে।” যদিও এই বিষয়টি নিয়ে এখনই কোনও জনস্বার্থ মামলা করতে চাইছে না কংগ্রেস। তাদের বক্তব্য, দেশের মানুষকে এবং সংবাদমাধ্যমকে জানাতে হবে সরকারের এই দুর্নীতির কথা।

চিদম্বরম বলেন,”অনেক প্রশ্নের উত্তর নেই প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর কাছে। খুব বড় ধরনের ষড়যন্ত্র হয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্পোরেট এবং সরকারের মধ্যে। যদিও এই চুক্তির বিষয়ে উত্তর দিতে দায়বদ্ধ দেশের সরকার। এই বিমানগুলো নেওয়া হয় জরুরিকালীন সময়ে। আসন্ন নির্বাচনগুলির আগে এই নিয়ে দলের পক্ষ থেকে তদন্তের দাবি করা হবে।” উল্লেখ্য, আসন্ন তিন রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাফাল চুক্তি নিয়ে কংগ্রেস মাঠে-ময়দানে নেমে আন্দোলন করতে চলেছে । জানা গেছে, রাফাল বিমান কেনার চুক্তি কেন আম্বানীদের দেওয়া হয়েছে তা নিয়ে অনেকটা ব্যাকফুটে কেন্দ্রের মোদী সরকার।


শেয়ার করুন
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment