কলকাতা 

ভবানীপুরে মদন মিত্রের চায়ের দোকানের এক কাপ চায়ের দাম ১৫ লক্ষ টাকা ! কেন জানতে চান ? ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক: এক কাপ চায়ের দাম ১৫ লক্ষ টাকা! অবাক হচ্ছেন না অবাক হওয়ার কিছু নেই মদন মিত্রের চায়ের দোকানের এক কাপ চা খেলে ১৫ লক্ষ টাকা লাগবে। কলকাতার ভবানীপুরে মদন মিত্রের চায়ের দোকান বিধানসভার এম এল এ মদন মিত্র প্রাক্তন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী মদন মিত্র। তিনি ভবানীপুরে চায়ের দোকান খুলেছে, সেই চায়ের দোকানের এক কাপ চায়ের দাম ১৫ লক্ষ টাকা!কালো পাঞ্জাবী, কালো টুপি পরে অনুগামীদের সঙ্গে নিয়ে ভবানীপুর এলাকায় চা বিক্রি করলেন কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র। কিন্তু হঠাৎ কেন এমন ‘ভোলবদল’ রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রীর?

আসল কারণ হলো পনেরো লক্ষ টাকার দক্ষতা হল লক্ষ্যটা মোদি নরেন্দ্র মোদি।  ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রতিটি নাগরিককে তো ১৫ লক্ষ টাকা করে দেবেন তাকেই কটাক্ষ করে নি এক কাপ চায়ের দাম রেখেছেন ১৫ লক্ষ টাকা। নরেন্দ্র মোদি পনের লক্ষ টাকা তো দিতে পারেননি পেট্রোপণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে গ্যাসের দাম বাড়িয়ে মধ্যবিত্তের নাভিশ্বাস তুলে দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী। তাই প্রতীকী চা বিক্রি করছেন কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র আর সেই চায়ের দাম রেখেছেন ১৫ লক্ষ টাকা।

এদিন মদন মিত্রের স্লোগান ছিল, “এক কাপ চায়ের দাম ১৫ লক্ষ টাকা।” তাঁর কথায়, “এমন চা আমেরিকার রাষ্ট্রপতিও খাওয়াতে পারেননি। যা এখন মোদিজি আমাদের খাওয়াচ্ছেন।” কিন্তু এক কাপ চায়ের দাম ১৫ লক্ষ টাকা কেন বললেন তৃণমূল বিধায়ক?

রবিবার সকাল থেকে ভবানীপুরের রাস্তায় দলীয় অনুগামীদের নিয়ে জমায়েত করেছিলেন প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী। উদ্দেশ্য, মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ। তাঁর অনুগামীরা অনেকেই প্রধানমন্ত্রীর মুখের আদলে মুখোশ পরেছিলেন। আর মদন মিত্র বিক্রি করছিলেন চা। যার প্রতি কাপের দাম ১৫ লক্ষ টাকা।

শুধুমাত্র মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদই নয়, বাবুল সুপ্রিয় থেকে তৃণমূলের মিশন ত্রিপুরা ইস্যু নিয়েও মুখ খুলেছেন কামারহাটির বিধায়ক। মদন মিত্রের কথায়, “ত্রিপুরায় ক্ষমতায় আসবে তৃণমূল। ওখানে খেলা হবে দিবস নয়, পালিত হবে বিজয় দিবস।” এদিকে বাবুল সুপ্রিয়কে পরোক্ষে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে রাখলেন তিনি। বাবুলের উদ্দেশে বললেন, “এত তাড়াতাড়ি আলবিদা কেন? এত সুন্দর আকাশ আছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ব আছে। এক মাঠে খেলবেন না, অন্য মাঠে খেলবেন। আমিও তো মাঝে প্র্যাকটিসে ছিলাম না। তাতে কী?”


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ