দেশ 

পঞ্চায়েতের রায়ে স্বস্তিতে রাজ্য নির্বাচন কমিশন ও সরকার, বিরোধীদের অভিযোগকে গুরুত্ব না দিয়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী প্রার্থীদের নাম ঘোষণার নির্দেশ শীর্ষ আদালতের

শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : পঞ্চায়েত মামলার রায়ে স্বস্তিতে রাজ্য সরকার। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী আসনে আজ গেজেট নোটিফিকেশন জারির অনুমতি দিল সুপ্রিম কোর্ট। এর ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী আসনগুলিতে আর ভোট হচ্ছে না।  সুপ্রিম কোর্ট আজ স্পষ্ট জানিয়েছে, নতুন করে কোনও ভোট হবে।  বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়  জয়ী প্রার্থীদের নামও ঘোষণা করা যাবে। অনলাইনে বা হোয়াটসঅ্যাপে নমিনেশন দেওয়ার যে রায় কলকাতা হাইকোর্ট দিয়েছিল তাও এদিন বিবেচনার মধ্যে রাখেনি শীর্ষ আদালত। কারণ পঞ্চায়েত আইনে এমন কোনও নিয়ম নেই বলে জানানো হয়েছে।
এদিনের রায়ের ফলে যে ২০ হাজার আসনে ভোট হয়নি সেই  আসনে জয়ী প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করতে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এখন আর নাম প্রকাশ করতে কোনও বাধা রইল না।

এদিনের রায়ের মূলত দুটি দিক রয়েছে। প্রথমত, স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে আলাদা করে কোনও নির্বাচন হচ্ছে না। বিরোধীদের অভিযোগ শুনেও তাতে বিশেষ আমল শীর্ষ আদালত দেয়নি। রাজ্য ও নির্বাচন কমিশনের পক্ষে রায়ে বলেছে, জয়ী প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা যাবে। এবং দ্বিতীয়ত, আদালতের নির্দেশ মেনে রাজ্য নির্বাচন কমিশন নাম নোটিফাই করলে তারপর বিক্ষুব্ধ প্রার্থীরা ইলেকশন ট্রাইবুনালে ফের অভিযোগ জানাতে পারবেন। সেখানে তাদের অভিযোগের শুনানি হবে।

সুপ্রিম কোর্ট আরও জানিয়ে দেয়, মনোনয়ন জমা দিতে পারেননি বলে যাঁরা অভিযোগ করেছিলেন, গেজেট নোটিফিকেশন জারির ৩০ দিনের মধ্যে তাঁরা জেলা জজের কাছে আবেদন করতে পারবেন। প্রসঙ্গত, ৭৯ নম্বর ধারায় জেলা জজের কাছে ইলেকশন পিটিশন করা যায়।রাজ্যের ২০ হাজার ১৭৮টি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করে তৃণমূল কংগ্রেস। বিরোধীরা অভিযোগ তোলে, তৃণমূল কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে দেয়নি। বিডিও ও এসডিও অফিস ঘিরে রেখেছিল। ফলে, তাদের প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা দিতে পারেননি।
সোমবার সুপ্রিম কোর্টে পঞ্চায়েত মামলার শুনানি শেষ হয়। ওইদিন প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে সব পক্ষের সওয়াল-জবাব শোনার পর প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, এক সপ্তাহের মধ্যেই মামলার রায় ঘোষণা হবে। সেইমতো আজ রায় ঘোষণা করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের জেরে রাজ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী আসনগুলিতে পুনর্নির্বাচন হবে না। তবে বিরোধীদের অভিযোগকে মান্যতা দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়, মনোনয়নে বাধা দেওয়ার মতো অভিযোগকে গুরুত্ব দিয়ে প্রত্যেককে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।


শেয়ার করুন
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment