বিনোদন, সংস্কৃতি ও সাহিত্য 

শতবর্ষে ‘বিদ্রোহী’ কবিতার আন্তর্জাতিক আলোচনা সভা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাংলার জনরব: বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘বিদ্রোহী’ কবিতার শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ‌পশ্চিম

বাংলার শহর,গ্রাম, মফস্বলের দিকে দিকে আয়োজিত হচ্ছে নানা আলোচনা সভা। কেন, কী প্রেক্ষিতে কবি লিখছিলেন তাঁর এই কালজয়ী কবিতা ? আর এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই গত ২৬ জুলাই চাঁইপাট শহীদ প্রদ্যোৎ ভট্টাচার্য মহাবিদ্যালয়ে আয়োজিত হয়েছিল ‘শতবর্ষে নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতা ‘ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক ভাবগম্ভীর ভার্চুয়াল আলোচনা সভা। আয়োজক ছিলেন মহাবিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও ছাত্র-ছাত্রীরা।

মূলতঃ বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথি রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলার বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. সুরঞ্জন মিদ্দের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এদিন আলোচনা সভার আকর্ষণ ছিল ‘নজরুলের বিদ্রোহী কবিতা ও সমকাল’, ‘বিদ্রোহী কবিতায় নজরুলের দ্বৈতসত্তা’ এবং ‘বিদ্রোহী কবিতার শতবর্ষ- এক বহুমুখী সৃষ্টির অনুভব’ শীর্ষক ‌তিনটি বিষয়। মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষা ড. শীলা চক্রবর্তীর স্বাগত ভাষণ এবং বাংলার বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক কাজী তাজউদ্দিনের উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা দিয়ে শুরু হওয়া আলোচনা সভায় উপরোক্ত বিষয় তিনটিতে তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্য পেশ করেন ক্রমে কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ড. শান্তনু মন্ডল, বাংলাদেশের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক জনাব রুবেল আনছার এবং রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের দূরশিক্ষা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সঞ্জীব মান্না।

এদিন অনুষ্ঠানে মহাবিদ্যালয়ের ছাত্রী পিয়ালির দাসের পরিবেশিত নজরুলের ‘খেলিছ এ বিশ্ব লয়ে বিরাট শিশু আনমনে’ বহুশ্রুত উদ্বোধনী সংগীত এবং বিশ্বজিৎ চক্রবর্তীর উদাত্ত কন্ঠের ‘বিদ্রোহী’ কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠানের সৌষ্ঠব বৃদ্ধি করে।

মীরা পাড়ুই (সেন) এর সঞ্চালনায় এদিনের স্মরণীয় অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্য রাখেন মহাবিদ্যালয়ের বাংলার সহকারী অধ্যাপিকা রত্নমালা নস্কর।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ