কলকাতা 

এসএসসি-র ওয়েটিং লিষ্টে গরমিলের অভিযোগে আদালতের দ্বারস্থ হতে চলেছে পরীক্ষার্থীরা, অভিযোগের তীর প্রাক্তন মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর দিকে ; কর্মরত বিচারপতিকে দিয়ে অভিযোগের তদন্তের দাবি বিরোধীদের

শেয়ার করুন
  • 69
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : স্কুল সার্ভিস কমিশনের শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে আবার কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করতে যাচ্ছে কিছু পরীক্ষার্থী বলে বিশেষ সূত্রে জানা গেছে । তাঁদের অভিযোগ একাদশ-দ্বাদশে প্রথম মেধা তালিকা অনুযায়ী কাউন্সিলিং হলে কয়েক দিন আগে যে ওয়েটিং লিষ্ট বেরিয়েছে তাতে বেশ কয়েকজনের নাম অদ্ভুত ভাবে ঢুকে পড়েছে । এটা এক ধরণের দূর্নীতি বলে অভিহত করেছে বিরোধীরা । সোস্যাল মিডিয়ায় যে নামটি ঘিরে সরগরম আলোচনা চলছে তা হল অঙ্কিত অধিকারী । অভিযোগ উঠেছে, এসএসসি-তে নিয়োগে এসসি মহিলাদের যে চূড়ান্ত ওয়েটিং লিস্ট প্রকাশ হয়েছিল তাতে কোথাও অঙ্কিতা অধিকারীর নাম ছিল না। কিন্তু রাষ্ট্রবিজ্ঞানে এখন যে এসসি তালিকা দেখা যাচ্ছে তাতে এক নম্বরে থেকে ববিতা বর্মণের নাম সরে গিয়ে সেখানে ঠাঁই পেয়েছে অঙ্কিতা অধিকারীর নাম। ওয়েটিং লিস্টে যার নাম যত উপরে থাকবে তার চাকরি পাওয়ার সুযোগটা বেশি থাকে। স্বভাবতই ববিতা বর্মণের নাম সরিয়ে কীভাবে অঙ্কিতার নাম ঢুকে গেল তা নিয়ে হইচই শুরু হয়েছে সোস্যাল মিডিয়ায় ।

গতকাল এই নিয়ে হইচই হওয়ার পর জানা যায়, অঙ্কিত অধিকারী আসলে রাজ্যের প্রাক্তন খাদ্য মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেয়ে । পরেশবাবু গত সপ্তাহেই ফরোয়ার্ড ব্লক ছেড়ে তৃণমূলে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন । বিরোধী দলগুলির অভিযোগ, সদ্য ফরওয়ার্ড ব্লক ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার ফল পাচ্ছেন পরেশ অধিকারী। গোটা কেলেঙ্কারিতে দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। বিষয়ে ফরওয়ার্ড ব্লকের কোচবিহার জেলা সভাপতি দীপক সরকার কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন প্রাক্তন মন্ত্রীকে।তিনি বলেন, “বিষয়টি নিয়ে অনেক জায়গায় আলোচনা হচ্ছে। এটি অবশ্যই চিন্তার বিষয়। এরকম বেশ কয়েকটি বিষয়ে ইতিমধ্যেই হাইকোর্ট-এ অনেকগুলি মামলা হয়েছে। আমার মনে হয় উচ্চস্তরে তদন্ত হওয়া দরকার। হাইকোর্টের সিটিং জজকে দিয়ে তদন্ত করানো উচিত।”তিনি আরও বলেন, “এক্ষেত্রে তো বোঝাই যাচ্ছে ওনার নৈতিক অধঃপতন হয়েছে। নিজের ছেলে-মেয়ের চাকরির সুবিধার জন্য দল ছাড়ল। উন্নয়ন, আদর্শ এগুলি কোনও কথাই নয়।”

 

এসএসসি-র ওয়েটিং লিস্টে স্থান পাওয়া পরীক্ষার্থীরাও গোটা ঘটনায় ক্ষুব্ধ। ওয়েটিং লিস্টে-র পাশাপাশি এমপ্যানেলড তালিকাও প্রকাশ পেয়েছে। তাই নাম না থাকা অঙ্কিতা অধিকারীকে যদি ‘রিকল’ করা হয়ে থাকে তাহলেও তাঁর নাম ওয়েটিং লিস্টে থাকা উচিত নয়। এসএসসি-র মেধাতালিকা প্রকাশের আগেই কাউন্সেলিং নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা হয়েছিল। সেই মামলা চলাকালেই হাইকোর্ট মেধাতালিকা প্রকাশের নির্দেশ দেয়।এসএসসি নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে ফের আদালতে যাওয়ার কথা ভাবছেন একদল পরীক্ষার্থী। ফলে এসএসসি নিয়োগ ফের অনিশ্চিয়তার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

 

অন্যদিকে শুধু রাষ্ট্রবিঞ্জান নয়, অন্য বিষয়গুলিতে এই ধরনের অস্বচ্ছতার অভিযোগ আসতে শুরু করেছে। জানা গেছে নিউট্রিশনে-র মেধা তালিকায় সাহানা পারভিন নামে ভাঙরের এক পরীক্ষার্থীর নাম ছিল পাঁচ নম্বরে। তালিকা প্রকাশের আটচল্লিশ ঘণ্টার মধ্যেই দেখা যাচ্ছে সাহানার নাম তালিকায় অনেক নিচে নেমে গিয়েছে। তার নামের আগে পাঁচ জনের নাম ঢুকেছে। অথচ, সাহানার স্বামীর দাবি কোনও তালিকাতেই এই পাঁচ জনের নাম ছিল না। এই সব অনিয়ম ও গরমিলের  অভিযোগ নিয়ে কিছু পরীক্ষার্থী আদালতের দ্বারস্থ হতে চলেছে বলে জানা গেছে।

 


শেয়ার করুন
  • 69
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment