কলকাতা 

“এমন নির্লজ্জ প্রধানমন্ত্রী দেখিনি একচ্ছত্র আধিপত্য চলছে” বিধানসভায় দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তীব্র সমালোচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বিপুল জনাদেশ নিয়ে ক্ষমতায় আসার পর প্রথম বিধানসভার অধিবেশন আজ মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লাগামছাড়া আক্রমণ করেন বিজেপিকে। এদিন তিনি বলেন  “এই বিজেপি ল্যাজ ছাড়া হনু।” ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে বিজেপির যে অভিযোগ খণ্ডন করে মুখ্যমন্ত্রী তীব্র ভাষায় বিজেপি ক আক্রমণ করেন।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন,”বৃক্ষ তোমার নাম কী, ফলে পরিচয়। কী অত্যাচার করেছেন, আমার মুখ খুলিয়ে লাভ নেই। মেদিনীপুরে ঘরে ঘরে যাবেন, মানুষ বলে দেবেন।” এরপরই তাঁর আক্ষেপ, “আগেও বিজেপির (BJP) সঙ্গে কাজ করেছি। এরকম ছিল না। এখনকার বিজেপি একটা ল্যাজ ছাড়া হনু।” নাম না করে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধেও তোপ দাগেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর কটাক্ষ, “ঘুরে বেড়াচ্ছে। কথায় ভদ্রতা নেই, সৌজন্য নেই, সংস্কৃতি নেই। মানুষের কথা না বলে, আমি কত বড় বলতে এসেছেন।”

রেশন দোকানে প্রধানমনন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হোর্ডিং লাগানো নিয়েও কেন্দ্রকে তোপ দাগেন মমতা। বলেন, “রেশন দোকানে নাকি মোদির হর্ডিং লাগাতে হবে। এক মাস পাঁচ কেজি শস্য দেবে। তাতেই এত। আমরা তো প্রতি মাসে দিই। এমন নির্লজ্জ প্রধানমন্ত্রী দেখিনি। একচ্ছত্র আধিপত্য চলছে।”

এদিন টিকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন তৃণমূল বিধায়কেরা। সেই আক্রমণে তাঁদের হাতিয়ার ছিল রাজ্যপালের ভাষণ। সেই সময় আবার আপত্তি জানায় বিজেপি বিধায়করা।

এ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কটাক্ষ, “আপনি রাজ্যপালকে অ্যালাও করেছিলেন? আপনাদের নমিনেটেড তো। আজ কেন বলছেন?” এদিকে এদিন বিধানসভা থেকে ওয়াকআউট করেন বিজেপি বিধায়করা। তাঁদের এই পদক্ষেপকেও কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, “গঠনমূলক সমালোচনা না করে বাইরে গিয়ে প্রেসের মুখোমুখি হয়েছেন। কিছু বলার নেই। তাই এক মিনিটে বেরিয়ে গেলেন।”

রেশন দোকানে প্রধানমনন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হোর্ডিং লাগানো নিয়েও কেন্দ্রকে তোপ দাগেন মমতা। বলেন, “রেশন দোকানে নাকি মোদির হর্ডিং লাগাতে হবে। এক মাস পাঁচ কেজি শস্য দেবে। তাতেই এত। আমরা তো প্রতি মাসে দিই। এমন নির্লজ্জ প্রধানমন্ত্রী দেখিনি। একচ্ছত্র আধিপত্য চলছে।”

এদিন শীতলকুচি কাণ্ড নিয়ে প্রাথমিক রিপোর্ট বিধানসভায় জমা দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, ৯৯টি অভিযোগ হয়েছে। ৪৭৭টি ফেক ভিডিও ব্লক হয়েছে। বিজেপি কত ফেক ভিডিও ছড়াচ্ছে সে কথা বলতে গিয়ে এই তথ্য দেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন,”শীতলকুচির কেস চলছে। তৈরি হলে জানতে পারবেন কীভাবে সেখানে বুথে ঢুকে কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি করেছিল।” নির্বাচনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনী ও কমিশনের ভূমিকা নিয়েও সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ