কলকাতা 

সোমনাথের স্মরণ সভায় আমন্ত্রণ এই রাজ্যের সব রাজনৈতিক দলের নেতাদের একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ জানাতে চলেছে সিপিএম প্রভাবিত সংগঠন

শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : যাবতীয় বিতর্ক ভুলে প্রয়াত সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের স্মরণসভায় বামেদের প্রধান প্রতিপক্ষ বলে পরিচিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে সিপিএম প্রভাবিত সংগঠন প্রতিবন্ধী সম্মিলনী। এই সংগঠনের পক্ষ  থেকেই এই স্মরণসভার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মূল উদ্যোক্তা বিগত বামফ্রন্ট সরকারের  প্রাক্তন মন্ত্রী কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়।
আগামী ২৭ আগস্ট, যাদবপুরেই এই স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছ। উল্লেখ্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর সংসদীয় রাজনীতির শুরুতেই সিপিএম দলের নেতা ও বিশিষ্ট আইনজীবী সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়কে যাদবপুর কেন্দ্রে হারিয়ে তিনি বিজয়ী হয়ে সংসদে প্রবেশ করেছিলেন। গত ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে তৃণমূলনেত্রী মমতা ঘোষণা করেছিলেন, তৃণমূলের পরবর্তী ব্রিগেড সমাবেশে বিজেপি-বিরোধী সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে তিনি আমন্ত্রণ জানাবেন। এ ব্যাপারে জাতীয় কংগ্রেস-সব বিভিন্ন বামপন্থী দলগুলিকেও তিনি আমন্ত্রণ জানাবেন বলে প্রকাশ্যে ঘোষণা করেন। সে সময় সিপিএম নেতৃত্বের প্রতিক্রিয়া মোটের উপর ভালো ছিল না।

কিন্তু সেই ঘটনার সপ্তাহ কয়েক না কাটতেই এ বার খোদ বামপন্থী দলের সভাতেই তৃণমূলনেত্রীকে আমন্ত্রণের তোড়জোড় চলছে বলে জানা গিয়েছে।দীর্ঘ দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন সোমনাথবাবু। সে সময়ও সিপিএম নেতৃত্ব তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিলেন। কিন্তু তাঁর মৃত্যুর পর মরদেহ লাল পতাকায় ঢাকা বা সিপিএমের সদর দফতরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে চরম আপত্তি তোলেন তাঁর পুত্র। এ ব্যাপারে অবশ্য সিপিএম নেতৃত্বও বহিষ্কৃত নেতার পুত্রের সঙ্গে কোনো বিতর্কে যাননি। তবে তাঁকে নিয়ে যে একটি স্মরণসভার আয়োজন করা হতে পারে, সে খবর আগেই মিলেছিল।

সোমনাথবাবুর এক সময়ের নির্বাচনী কেন্দ্র যাদবপুরে হবে ওই স্মরণসভা।মূলত তাঁর উদ্যোগেই প্রতিবন্ধী সম্মিলনী ও সিটিজেন্স ফোরামের উদ্যোগে সোমনাথবাবুর পুরনো সংসদীয় কেন্দ্র যাদবপুরে এই স্মরণসভার আয়োজন করা হচ্ছে। ২৭ আগস্টের এই সভায় আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও। শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই নন, এই আমন্ত্রণ তালিকায় থাকছেন রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দই।


শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment