দেশ 

‘‘জরুরি অবস্থায় চিকিৎসা ও শল্য চিকিৎসায় অ্যালোপ্যাথিই সেরা”রামদেব হঠাৎ কেন এ ধরনের মন্তব্য করলেন, নেপথ্যে কারণ কি? জানতে হলে ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক: কয়েকদিন আগেই এলোপ্যাথি ডাক্তারদের কটাক্ষ করেছিলেন । তিনি দাবি করেছিলেন যোগাসন এবং আয়ুর্বেদিক মানুষের সুরক্ষার জন্য যথেষ্ট। তা নিয়ে দেশজুড়ে হৈচৈ শুরু হয়। এই ঘটনা নিয়ে রামদেবের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকে দেশের চিকিৎসক মহল। কিন্তু রামদেব প্রথম থেকেই তার বক্তব্যে অনড় ছিলেন। এরপর দেশের বেশ কয়েকটি মিডিয়া প্রধানমন্ত্রীকে এই ইস্যুতে আক্রমণ শুরু করেন। আর এতেই পরিস্থিতি ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গেল রামদেব পালটি খেলেন তিনি বললেন ডাক্তাররা হচ্ছেন ঈশ্বরের প্রেরিত দূত।

বৃহস্পতিবার হরিদ্বারে যোগগুরু বলেন, ‘‘আপনারা ভ্যাকসিনের দু’টি ডোজ নিয়ে নিন। সেই সঙ্গে যোগ ও আয়ুর্বেদের জোড়া সুরক্ষাতেও থাকুন। এর ফলে আপনারা সুরক্ষার এমন এক বলয়ের মধ্যে থাকবেন কারওকে আর করোনায় মরতে হবে না।’’ ২১ জুন থেকে দেশজুড়ে বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি । সেই পদক্ষেপকে ‘ঐতিহাসিক’ আখ্যা দিয়েছেন রামদেব।

এরপরই তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়, তিনি কবে করোনা টিকা নেবেন। এর উত্তরেই রামদেব জানিয়ে দেন, ‘‘খুব শিগগিরি।’’ পরে তিনি অ্যালোপ্যাথি ডাক্তারদের প্রশংসা করে তাঁদের ‘‘পৃথিবীতে ঈশ্বর প্রেরিত দূত’’ বলে জানিয়ে দেন।

তাঁর কথায়, ‘‘আমি কোনও সংস্থারই বিরুদ্ধে নই। চিকিৎসকরা সত্যিকারের দেবদূত। পৃথিবীতে ঈশ্বর প্রেরিত দূত তাঁরা। কিন্তু কোনও কোনও ডাক্তার ব্যক্তিগত ভাবে ভুল কাজ করতেই পারেন।’’ এরপরই তিনি মেনেও নেন, ‘‘জরুরি অবস্থায় চিকিৎসা ও শল্য চিকিৎসায় অ্যালোপ্যাথিই সেরা। এই নিয়ে কোনও দ্বিমত থাকতে পারে না।’’

যদিও এর আগে একেবারেই অন্য সুরে কথা বলতে দেখা গিয়েছিল যোগগুরুকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল এক ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল রামদেব বলেছিলেন,‘‘অ্যালোপ্যাথি চিকিৎসা আসলে বোকামি। চিকিৎসার নামে তামাশা চলে। লক্ষ লক্ষ মানুষ মারা যাচ্ছে শুধুমাত্র অ্যালোপ্যাথি ওষুধ খেয়ে।” তিনি প্রশ্ন তোলেন, অ্যালোপ্যাথি যদি এতই ভাল হবে, তাহলে চিকিৎসকরা অসুস্থ হন কেন। অ্যালোপ্যাথি ২০০ বছরেও বহু রোগের ওষুধ তৈরি করতে পারেনি কেন? যা নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয় বিতর্ক। রামদেবকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে বলে দেশের চিকিৎসক সংগঠনগুলোর দাবি করে। তার পরেও রামদেব তার বক্তব্যে অনড় ছিলেন হঠাৎ কি এমন হলো তিনি তার বক্তব্য থেকে 180 ডিগ্রি ঘুরে গেলেন। চিকিৎসকদের ঈশ্বরের প্রেরিত দূত বলে অভিহিত করলেন সেটাই এখন সাধারণ মানুষকে ভাবাচ্ছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ