দেশ 

আন্তর্জাতিক শিশু পাচার চক্রের পান্ডা পুলিশের জালে, আমেরিকায় পাচার করা হত নাবালক-নাবালিকাদের ,দর ছিল ভারতীয় টাকায় ৪৫ লক্ষ

শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : এক আন্তর্জাতিক শিশু পাচার চক্রের পান্ডা ধরা পড়ল মুম্বই পুলিশের জালে  । কমপক্ষে ৩০০ জন শিশুকে এই চক্রটি ভারত থেকে আমেরিকায় পাচার করেছে বলে অভিযোগ। রাজুভাই গামলেওয়ালা নামে ওই ব্যক্তি গুজরাতের বাসিন্দা। ২০০৭ সাল থেকে সে মিশু পাচারের সঙ্গে যুক্ত বলে জানা গেছে। প্রতিটি শিশুর জন্য মার্কিনী খদ্দেরদের কাছ থেকে ৪৫ লক্ষ টাকা করে নেওয়া হত।  এবছর মার্চে প্রথম চক্রটির সন্ধান পেয়েছিল মুম্বই পুলিশ।

জানা গিয়েছে গামলেওয়ালা ও তাঁর সঙ্গীরা কাজ করত মূলতঃ গুজরাতে। ১১ থেকে ১৬ বছরের নাবালক নাবালিকাদেরই পাচার করা হত। তাদের টার্গেট ছিল গরিব পরিবারের বাচ্চারা । এমন পরিবার যাদের পক্ষে সন্তানদের মানুষ করাটা কঠিন। সেইসঙ্গে খোঁজা হত এমন কিছু পরিবারকে যাঁরা তাঁদের শিশুদের পাসপোর্ট ভাড়া দিতে রাজি আছেন। তারপর সেই পাসপোর্টের শিশুর মুখের সঙ্গে মিলিয়ে ওই দরিদ্র পরিবারগুলি থেকে বেছে নেওয়া হত শিশুদের।

চক্রটি দালাল মাধ্যমে  অর্থের বিনিময়ে নকল পাসপোর্ট ব্যবহার করে ওই শিশুদের পৌঁছে দিত আমেরিকায়। তবে তার আগে পাসপোর্টের সঙ্গে শিশুটির আরও মিল আনার জন্য লাগানো হত মেক আপ। কেরিয়াররা শিশুদের ক্লায়েন্টদের হাতে তুলে দিয়ে ফিরে আসত নকল পাসপোর্টগুলি নিয়ে এবং তা ফিরিয়ে দেওয়া হত আসল মালিকদের কাছে। শিশুদের মেকআপ করাতে গিয়েই  চক্রটির কথা প্রথম পুলিশের নজরে আসে। এক কয়েকজন নাবালিকাকে আলাদা আলাদা সেলুনে নিয়ে গিয়ে মেকআপ করানো হচ্ছে, বন্ধুর মারফত এই খবর জেনে সেখানে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী প্রীতি সুদ। তিনি ভেবেছিলেন তাদের যৌনপেশায় নামানো হচ্ছে। তিনি পুলিশে খবর দেন। তারপরই এই পাচার চক্রের কথা জানা গিয়েছিল।
সেই সময় এই চক্রের ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে পুলিশের এক প্রাক্তন সাবইন্সপেক্টরের ছেলেও ছিল। পুলিশ জানিয়েছে সাগরেদ সঙ্গে গামলেওয়ালা একটি হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরের মাধ্যমে যোগাযোগ রাখত। সেই নম্বরের সূত্র ধরেই পুলিশ তার খোঁজ পেয়েছে। এর আগে ২০০৭ সালে পাসপোর্ট জাল করার অপরাধে মুম্বইতেই সে ধরা পড়েছিল।


শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment