দেশ 

Jogi Modi conflict : উত্তরপ্রদেশের যোগী সরকারের পতন কি আসন্ন ?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরী : উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এর সঙ্গে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সংঘাত দীর্ঘদিন ধরেই চলছে। উত্তরপ্রদেশের চালু কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন প্রজেক্ট বা প্রকল্পগুলির বিজ্ঞাপনে মোদির ছবি থাকে না। এটা কয়েক বছর ধরেই চলছে।

তা সত্ত্বেও বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নীরব ছিল বিষয়টি নিয়ে। কারণ তারা নির্দিষ্ট কারণ খুঁজছিল যাতে যোগীকে কায়দা করা যায়। এদিকে পশ্চিমবাংলা বিধানসভা নির্বাচনের পরেই উত্তর প্রদেশ পঞ্চায়েত নির্বাচনের সবচেয়ে খারাপ ফল করেছে বিজেপি। এরপর আসরে নামে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব তারা বলতে শুরু করেন করেন যে, যোগী সরকারের নানা রকম কাজকর্মে সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ সেই জন্যই ভোট তারা দেয়নি বিজেপিকে। এই পরিস্থিতিতে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বদল জরুরি বলে বিজেপি দলের একাংশ মনে  করছিলেন।

তবে যোগীর ঘনিষ্ঠ বিজেপির নেতারা মনে করছেন পশ্চিমবাংলার ভোটের বিজেপি দল যেভাবে হেরেছে তার প্রভাব পড়েছে উত্তরপ্রদেশে পঞ্চায়েত নির্বাচনে। যোগীর ঘনিষ্ঠ মহল বলছেন বাংলাতে হেরে যাওয়ার জন্য নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা অনেকটাই ধাক্কা খেয়েছে। মোদির লোকপ্রিয়তা কমে যাওয়ার জন্যই বিজেপি এখন অনেক জায়গাতেই হেরে যাচ্ছে এমনকি অসমে বেশ খানিকটা ভোট তার কমে গেছে। কেরলে শূন্য হয়ে গেছে তামিলনাড়ু তো ভালো প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি আগামী দিনে অন্যান্য রাজ্যগুলিতেও জনপ্রিয়তা হারাবে বিজেপি কারণ নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা কমছে।

যোগীর লোকেরা যাই বলুক না কেন তা মানতে রাজি নয় মোদীর ঘনিষ্ঠ বিজেপি নেতারা। তাদের দাবি হলো উত্তর প্রদেশ পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপির খারাপ ফলের জন্য সরাসরি দায়ী যোগী আদিত্যনাথ। এখানেই থেমে নেই মোদির ঘনিষ্ঠরা তারা উত্তর প্রদেশ বিধানসভার স্পিকারকে আসরে নামিয়েছে।

সূত্রের খবর ,কয়েকদিন আগে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার স্পিকার রাধামোহন সিংহ দেখা করেছেন উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দিবেন প্যাটেলের সঙ্গে। সেই বৈঠকে কি কথা হয়েছে তা জানা না গেলেও বিভিন্ন সূত্র মাধ্যমে জানা যাচ্ছে উত্তর প্রদেশ বিধানসভা ২০০ জন বিজেপি বিধায়ক নাকি যোগী আদিত্যনাথ-র প্রতি অনাস্থা ব্যক্ত করেছেন। সেই অনাস্থা ব্যক্ত করা চিঠি নাকি বিধানসভার স্পিকার রাধামোহন সিং তুলে দিয়েছেন রাজ্যপালের হাতে। যদিও এই খবরের সত্যতা এখনো প্রকাশ পায়নি তবে এ কথা ঠিক রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে একটা রিপোর্ট পাঠিয়েছেন রাজ্যপাল আনন্দিবেন প্যাটেল।

তবে শোনা যাচ্ছে ওই চিঠিতে যোগী আদিত্যনাথের প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করে ২০০ জন বিধায়ক  রাজ্যপালের কাছে আবেদন করেছেন অবিলম্বে যোগী আদিত্যনাথকে মুখ্যমন্ত্রীর কুরসি থেকে সরিয়ে দেওয়ার।

এই ঘটনাটি ঘটবে কি ঘটবে না এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তবে উত্তরপ্রদেশের রাজনীতির হালচাল সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখেন এমন বেশ কয়েকজন প্রবীণ সাংবাদিক এর কথাবার্তা থেকে জানা যাচ্ছে উত্তর প্রদেশ এখন সংকটের মধ্যে দিয়ে বিরাজ করছে। যদি রাজ্যপাল যোগী আদিত্যনাথকে অপসারণের চেষ্টা করেন তাহলে সেক্ষেত্রে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সরাসরি বিধানসভা ভেঙে দিয়ে ভোটে চলে যেতে পারেন। বিজেপিকে সবচেয়ে বেশি ভাবাচ্ছে তাহলো যোগী আদিত্যনাথ তার ঘনিষ্ঠ মহলে বলেছেন যদি এই ধরনের কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা মোদী শাহ করেন তাহলে তিনি বিজেপি ছেড়ে দিয়ে অন্য দল তৈরি করে ভোটের ময়দানে নামবেন ।

সেক্ষেত্রে উত্তরপ্রদেশকে ধরে রাখতে পারবেন কি মোদি শাহ সেটাই এখন বড় প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে। কারণ মনে রাখতে হবে উত্তরপ্রদেশ বিজেপির হাতছাড়া হলে দিল্লি অনেক দূর অস্ত হয়ে যাবে। ২০২৪ এ দিল্লি দখল বিজেপির কাছে অধরা থেকে যাবে। তাই দেশের রাজনীতি এখন আর মমতাকে ঘিরে নয় বিজেপির বিজেপির অন্দরমহলকে নিয়েই বেশি চর্চা হচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। এবার কি বিজেপির শেষের শুরু।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment