আন্তর্জাতিক 

মোদী সরকারের সাত বছরে বিশ্বগুরু নয়, উন্নয়নের নিরিখে বাংলাদেশ , ভূটান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কার পেছনে ভারত রিপোর্ট রাষ্ট্রসংঘের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ভারত নাকি বিশ্বগুরুর মর্যাদা পেয়েছে বলে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দাবি করেন। কিন্ত গতকাল ৬ জুন রবিবার রাষ্ট্রসংঘ থেকে প্রকাশিত তথ্য বলছে অন্য কথা । এই তথ্য অনুসারে ভারত আরও পিছিয়ে গেছে । এমনকি বাংলাদেশের চেয়েও অনেকটাই পেছেনে রয়েছে ।  তথ্য বলছে, জনস্বাস্থ্য থেকে সর্বজনীন শিক্ষা, শিশুদের অপুষ্টি দূরীকরণ বা বেকারত্ব— অর্থনীতি-কর্মসংস্থানের মতো এই সব গুরুত্বপূর্ণ সূচকেও মোদী জমানায় ক্রমশই তলিয়ে যাচ্ছে একদা বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ অর্থনীতি হয়ে ওঠা ভারত। প্রতিবেশী বাংলাদেশ তো বটেই, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, নেপাল বা শ্রীলঙ্কার মতো তথাকথিত ছোট অর্থনীতির দেশও গত কয়েক বছরে মোদী-শাসিত ভারতকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গিয়েছে।

দেশের সব মানুষকে খাদ্যসুরক্ষা দেওয়ার প্রশ্নে চূড়ান্ত ব্যর্থতা ও সমাজে লিঙ্গবৈষম্য প্রবল ভাবে থেকে যাওয়ার কারণে রাষ্ট্রপুঞ্জের ‘সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল’ বা স্থায়ী উন্নতির সূচকে আগের তুলনায় দু’ধাপ নীচে নেমে গেল মোদী-শাসিত ভারত! প্রতিবেশী বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কার মতো তথাকথিত ছোট দেশও ওই তালিকায় ভারতের উপরেই রয়েছে। ২০১৫ সালে রাষ্ট্রপুঞ্জ ‘সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল’ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছিল।

রাষ্ট্রপুঞ্জের ওই পরিকল্পনায় ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বে যাতে শান্তি ও সমৃদ্ধি আসে, সেই লক্ষ্যে ১৭টি বিষয়কে চিহ্নিত করে তা দূর করতে দেশগুলিকে পরিকল্পনা হাতে নিতে বলা হয়। ওই ১৭টি বিষয়ের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে দারিদ্র দূরীকরণ। দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে যথাক্রমে রয়েছে, সকলের জন্য খাদ্যসুরক্ষা, সুস্বাস্থ্য, উন্নত মানের শিক্ষা, লিঙ্গবৈষম্য রোধ। প্রতিবেশী দেশগুলির তুলনায় দ্বিতীয় ও পঞ্চম বিষয়ে খারাপ ফল করায় ভারতের স্থান দু’ধাপ নীচে নেমে গিয়েছে বলে রিপোর্টে জানানো হয়েছে।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment