জেলা 

শিলিগুড়িতে ভেঙে পড়ল উড়ালপুলের একাংশ হতাহতের খবর নেই, ক্ষোভ স্থানীয় মানুষদের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : কলকাতার পর এবার শিলিগুড়িতে ভেঙে পড়ল উড়ালপুলের একাংশ। যদিও এই ঘটনায় কেউ  আহত বা নিহত হয়নি । কলকাতার বড়বাজারে পোস্তা উড়ালপুল ভেঙে পড়ার স্মৃতি আজও দগদগে। সেই ঘটনা পুরোনো হতে না হতেই এবার শিলিগুড়িতে ভেঙে পড়ল উড়ালপুলের একাংশ। ৩১ডি জাতীয় সড়কের উপর তৈরি হচ্ছিল উড়ালপুলটি। শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়া ব্লকের ক্রান্তিভিটা এলাকায় নির্মীয়মাণ ওই উড়ালপুলটির একাংশ আজ সকালে ভেঙে পড়ে।

ক্রান্তিভিটা থেকে গোয়ালটুলি পর্যন্ত উড়ালপুলটি নির্মাণ করা হচ্ছিল। প্রকল্পটি ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার তত্ত্বাবধানে ছিল। যদিও প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজের বরাত দেওয়া হয়েছিল  L&T সংস্থাকে। বরাত পাওয়ার পরেই কাজ শুরু করে দেয় সংস্থাটি। প্রায় দেড় বছর ধরে চলছিল নির্মাণকাজ। গতকাল রাত প্রায় সাড়ে তিনটে নাগাদ ওই উড়ালপুলটির একটি গার্ডার রাস্তার ওপর উলটে পরে। অন্যদিকে বাকি তিনটি গার্ডার সেখানেই দুমড়ে মুচড়ে যায়। দুর্ঘটনার সময় রাস্তায় লোক চলাচল কম ছিল। তাই কোনও প্রাণহানির ঘটেনি। তবে, বেলার দিকে দুর্ঘটনাটি ঘটলে পরিস্থিতি গুরুতর হতে পারত। এই দুর্ঘটনার পর উড়ালপুলটি যে নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে তৈরি করা হচ্ছিল তার গুণমান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। দুর্ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ উড়ালপুলের নির্মাণ শ্রমিকদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। এমনকী তারা নির্মাণ সংস্থার পদাধিকারীদের ঘিরেও বিক্ষোভ দেখায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থানে পৌঁছায় ফাঁসিদেওয়া থানার পুলিশ।

ঘটনা প্রসঙ্গে নির্মাণকারী সংস্থার প্রোজেক্ট ম্যানেজার অসিত ঘোষ বলেন, “সঠিক কী হয়েছে তা বলা মুশকিল। যান্ত্রিক ত্রূটি থাকতে পারে।” তবে সমস্ত কিছু খতিয়ে না দেখে স্পষ্ট কিছু বলা যাবে না বলে দাবি করেন তিনি। সেক্ষেত্রে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হতে প্রায় দুদিন সময় লাগবে বলে জানান।

অন্যদিকে নির্মাণকারী সংস্থার তরফে অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়র সুমন ব্যানার্জি বলেন, “এই কাজে কোনও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়নি। এটা দুর্ঘটনা। কোনও গাড়ি সম্ভবত উড়ালপুলের গার্ডারে ধাক্কা মারে। তাতেই এই বিপত্তি।” নির্মাণকাজ সম্পন্ন হলে অবশ্য এমন ঘটনা ঘটত না বলে দাবি করেন তিনি।

স্থানীয় ‍বিডিও প্রণয়কুমার মজুমদার বলেন, “কীভাবে ঘটনাটি ঘটল তা খতিয়ে দেখা হবে।” পাশাপাশি ওই নির্মাণকারী সংস্থার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করা হবে বলেও জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, “সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখলাম। বিষয়টি মহকুমাশাসক থেকে শুরু করে জেলাশাসকের নজরে আনা হয়েছে। তারা নজরদারি চালাচ্ছেন।” পরিস্থিতি অনুসারে আগামীতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment