কলকাতা 

মমতাদি অবস্থান স্পষ্ট করুন দেশ আগে, না ভোট ব্যাঙ্ক এনআরসি ইস্যুতে মমতাকে তোপ অমিতের

শেয়ার করুন
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি :”মমতাদি অবস্থান স্পষ্ট করুন যে দেশ আগে, না ভোটব্যাঙ্ক আজ শনিবার কলকাতায় বিজেপির যুব সমাবেশে দাঁড়িয়ে অমিত শাহ কার্যত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এনআরসি ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করার চ্যালেঞ্জ জানালেন। তিনি বলেন,এনআরসি হল অসমে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিতকরণ। তাদের খুঁজে দেশের বাইরে বের করার প্রক্রিয়া।”বিজেপি মনে করে, এই ইস্যুতে মমতা ভুল বোঝানোর চেষ্টা করছেন দেশের মানুষকে। অনুপ্রবেশকারী আর শরণার্থীদের গুলিয়ে দিচ্ছেন। তাই বিজেপির  সর্বভারতীয় সভাপতির হুঁশিয়ারি, ” মমতাদি বিভ্রান্তি ছড়ানো বন্ধ করুন।তিনি বলেন, অনুপ্রবেশকারীদের বাংলাদেশে পাঠালেই তৃণমূলের ভোটব্যাঙ্কে ধস নামবে। এই বাংলায় ক্ষমতায় আসবেন তাঁরাই। তবেই বাংলার উন্নয়ন হবে। বাংলাকে রক্ষা করতে বাংলায় মানোন্নয়ন ঘটাতে বিজেপিকে দরকার। বাংলার প্রতিটি গ্রাম গ্রামে এই আওয়াজ তুলতে হবে।তৃণমূলের বিদায়ঘণ্টা বাজিয়ে দিতে হবে। যতদিন না তৃণমূলকে বাংলা থেকে বিদায় হচ্ছে ততদিন আমাদের লড়াই চলবে। বাংলা বিজয় না হলে আমাদের বিজয় রথ সর্ম্পূণ হবে না। এই ভাষাতেই ২০১৯-এর সুর বেঁধে দেন অমিত শাহ।

তিনি বলেন, বিজেপি সঠিক পথেই এগোচ্ছে। বাংলায় মানুষে সমর্থন পেয়েই চলেছি। এভাবে চললেই আমাদের লক্ষ্যপূরণ হবে। বাংলার যুব সমাজ বিজেপির ডাকে সাড়া দিয়েছে। তাই এদিন বিপুল উন্মাদনা লক্ষ্য করা গিয়েছে এই সভায়। বাংলার দূর-দূরান্ত থেকে যুবমোর্চার ডাকে যেভাবে বাংলার মানুষ ছুটে এসেছেন, তাতে জয় হবেই হবে।সুর চড়িয়ে অমিত শাহ বুঝিয়ে দেন, আগামী লোকসভা নির্বাচনেএনআরসিকে-কে তুরুপের তাস করতে চলেছে বিজেপি। অনুপ্রবেশ ইস্যুতে শান দিয়ে সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলিতে ভোট করাতে চায় তারা। অমিত শাহ বোঝাতে শুরু করেনেএনআরসি কী এবং কেন? বলেন, শরণার্থীরা কোথায় যাবেন? শরণার্থীদের এখানে রাখা কেন্দ্রীয় সরকারের দায়িত্ব, এনআরসি হবেই। বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করা হবেই। দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে এটা জরুরি।”

 


শেয়ার করুন
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment