দেশ 

প্রকৃত ভারতীয়দের চিন্তার কোন কারণ নেই, কোন ভারতীয়কে বাদ দেওয়া হবে না, জাতীয় নাগরিক পঞ্জি তালিকা নিয়ে প্রথম প্রতিক্রিয়ায় অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : অসমের জাতীয় নাগরিক পঞ্জি প্রকাশ হওয়ার পর থেকে সমগ্র দেশজুড়ে হইচই হলেও অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল এতদিন নিরব ছিলেন। এমনকি,তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল অসমের শিলচর বিমানবন্দরে হেনস্থার অভিযোগ করলেও তা নিয়ে অসমের মুখ্যমন্ত্রী একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধিদের হেনস্থার অভিযোগে সংসদে হইচই হয়েছে এমনকি দেশের সমস্ত সংবাদ মাধ্যমে বিষয়টি ফলাও করে প্রকাশিত হওয়ার পরও তিনি নিরব ছিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আক্রমণাত্মক বিবৃতি সত্তে তিনি একটি শব্দও খরচ করেননি। অবশেষে শনিবার সন্ধ্যায় অসমের মুখ্যমন্ত্রী এনআরসি নিয়ে প্রথম মুখ খুললেন। আর তিনি প্রথম আক্রমনটি করলেন এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সংবাদ সংস্থা খবর অনুযায়ী তিনি প্রথম বিবৃতিতেই বলেছেন,”সমাজে মেরুকরণের কুচেষ্টা করতে  তৃণমূলের সদস্যদের পাঠানো হয়েছিল।” অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল বলেন, “বারাক উপত্যকার বাসিন্দাদের ধন্যবাদ। বাইরের কোনও শক্তি দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে তাঁরা ধৈর্য রেখেছেন। রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাংলা ভাষার মানুষদের আমি ধন্যবাদ জানাই। কারণ রাজ্যভাগ করার যে অপচেষ্টা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তার বিরুদ্ধে তাঁরা প্রতিবাদে সরব হয়েছেন।”

,তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, “সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ। সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে ধরনের মন্তব্য করছেন তা উচিত নয়। ওই মন্তব্যের ফলে বাংলা ও অসমের মধ্যে হিংসা ছড়াতে পারে।”

অসমের জাতীয় নাগরিক পঞ্জি প্রসঙ্গে অসমের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “শান্তিপূর্ণ এবং আনন্দকর পরিবেশে এই খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে। যা অসমের মানুষের জন্য গর্বের।”  অসমবাসীর নাম বাদ যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “এটা শুধুমাত্র একটা খসড়া তালিকা। যারা প্রকৃত ভারতীয় অথচ  তালিকায় নাম নেই তাঁদের চিন্তার কোনও কারণ নেই। তাঁরা ফের ওই তালিকায় নাম তুলতে পারবেন।”


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment