দেশ 

প্রেসিডেন্সি কলেজের প্রাক্তনী ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায় সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হলেন

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : বাংলার সন্তান হিসেবে ইতিহাস রচনা করলেন বিচারপতি ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার তিনি সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করলেন। সেই সঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট-এর ইতিহাসে এই প্রথম  একই সঙ্গে   তিনজন মহিলা বিচারপতি পেল। ৬০ বছর বয়সী মাদ্রাজ হাইকোর্টের এই সদ্য প্রাক্তন বিচারপতি অষ্টম মহিলা হিসেবে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি নিযুক্ত হলেন। ১৯৮৯ সালে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট প্রথম মহিলা বিচারপতি পেয়েছিল। কিন্তু কখনই একসঙ্গে তিনজন মহিলা বিচারপতি পায়নি শীর্ষ আদালত। ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগে থেকেই সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতির দায়িত্ব সামলে আসছেন বিচারপতি আর বানুমথি ও বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা।

কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজের প্রাক্তনী ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায় গত শতাব্দীর আটের দশকের মাঝামাঝি কর্মজীবন শুরু করেছিলেন একজন আইনজীবী হিসেবে। ২০০২ সালে তিনি হাইকোর্টের বিচারপতি নির্বাচিত হন। গত বছরই তাঁকে মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি হিসেবে মনোনীত করা হয়েছিল। মাত্র দু সপ্তাহ আগেই তাঁকে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি পদে উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাঁর সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির দায়িত্ব পাচ্ছেন বিচারপতি বিনীত সরন ও বিচারপতি কেএম জোশেফ। গত কয়েকমাসে বিচারপতি কে.এম. জোশেফের নিয়োগ নিয়ে প্রচুর নাটক হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের কলেজিয়াম তাঁকে বেছে নিলেও আপত্তি জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। সরকার তাঁর নাম পুনর্বিবেচনার জন্য ফেরত পাঠায় কলেজিয়ামে।
কিন্তু নিজেদের সিদ্ধান্তে অটল থাকে কলেজিয়াম। নিয়ম অনুযায়ী কলেজিয়াম দ্বিতীয়বার কারোর নাম সুপারিশ করলে তা মেনে নেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না কেন্দ্রের। কিন্তু এরপরেও তাঁর নিয়োগ নিয়ে সরকার টালবাহানা করবে বলে মনে করা হয়েছিল। কিন্তু সরকারি সূত্র সেই বিষয়টি মানতে চায়নি। তাদের বক্তব্য বিচারপতি জোশেফের নিয়োগে কেন্দ্রের আপত্তি ব্যক্তি স্তরে ছিল না, ছিল পদ্ধতিগত কারণে।

 


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment