কলকাতা 

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলারের বাহিনী যা করেছিল,অসমেও তাই শুরু হয়েছে : সুব্রত মুখার্জি

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : আজ তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সমগ্র রাজ্য জুড়ে কালা দিবস পালন করা হয়। অসমের জাতীয় নাগরিক পঞ্জি থেকে ৪০ লক্ষ বাঙালির নাম বাদ যাওয়া এবং পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে অসমে যাওয়া তৃণমূল প্রতিনিধিদের হেনস্থার প্রতিবাদেই রাজ্য জুড়ে কালা দিবসের ডাক দেয় তৃণমূল কংগ্রেস। আজ রাজ্যের সবপ্রান্তের সঙ্গে কলকাতাতে মুখে কাল ব্যাজ পরে মিছিল করে তৃণমূল নেতা ও কর্মীরা। কলকাতার বালিগঞ্জ এলাকায় মিছিলের নেতৃত্ব দেন রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। বালিগঞ্জের  বিভিন্ন এলাকা মিছিল পরিদর্শন করার পর গড়িয়াহাট মোড়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়। এরপরে সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী ও এলাকার বিধায়ক সুব্রত মুখার্জি বলেন, “অসমে সাধারণ মানুষের উপরে যা অত্যাচার করা হচ্ছে তা পৃথিবীর ইতিহাসে নজিরবিহীন। ইতিহাসে এই ধরনের অত্যাচারের কথা পড়েছি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে হিটলারের বাহিনী যা করেছিল, অসমেও তাই শুরু হয়েছে। ৪০ লাখ মানুষকে একেবারে অসহায় করে দিয়েছে। এত মানুষকে বিতাড়িত করতে সবরকম ব্যবস্থা করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার প্রত্যক্ষভাবে মদত দিচ্ছে। আমরা জনমত তৈরি করছি।” তিনি আরও বলেন, “যে কোনও মানুষের যেমন কলকাতায় থাকার অধিকার আছে তেমনি ভারতের যেকোনও প্রান্তে থাকার অধিকার আছে। অসমেও থাকার অধিকার রয়েছে। অতীতে অসমে বাঙালি খেদাও করেছিল। আমরা তার ধিক্কার জানিয়েছিলাম। আগামীদিনে আমরা জানি না ঠিক কত মানুষ গৃহহীন হবে বা মৃত্যুমুখে চলে যাবে। এই নৃশংস রাজনীতির প্রতিবাদ করছি। এবিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।”

তৃণমূল প্রতিনিধি দলের অসম যাওয়াকে কটাক্ষ করেছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ,তার উত্তরে আজ সুব্রতবাবু বলেন, “মুখ কালো হয়নি। বরং মুখ উজ্জ্বল হয়েছে। যারা অন্য লোকের মুখ কালো হয়ে গেছে বলছে তারা আগে নিজেদের মুখ দেখুক। তাদের মুখ পুড়ে গেছে।”

 

ছবি : ফাইল চিত্র

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment