জেলা 

মুখ্যমন্ত্রীর আন্তরিক উদ্যোগে তারাশঙ্করের ধাত্রী দেবতার, হাল ফেরাতে ৩১ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেছে রাজ্য সরকার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শুভা গাঙ্গুলি : বাংলা ভাষা-সাহিত্যের প্রখ্যাত কথাশিল্পী তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের বীরভূমের বাড়িটি রক্ষনাবেক্ষণের অভাবে নষ্ট হতে বসেছিল । কিন্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় তথ্য সংস্কৃতি দপ্তর ও বীরভূম জেলাপরিষদের যৌথ উদ্যোগে এই কিংবদন্তী সাহিত্যিকের বাড়িটিকে সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।  এই জন্য ইতিমধ্যেই অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রয়োজনে আরো অর্থ বরাদ্দ করা হবে বলেও জানিয়েছেন বীরভূম জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী। গত ২৫ জুলাই বীরভূম জেলার লাভপুরে কথা সাহিত্যিক তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ১২১তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাডেমি উদ্যোগে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল, সহযোগিতায় ছিল মহকুমা তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তর, লাভপুর পঞ্চায়েত সমিতি ও বীরভূম সংস্কৃতি বাহিনী। সেখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে বীরভূম জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী জানান, “তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ী ধাত্রী দেবতা কে পুনরুদ্ধার ও রক্ষণাবেক্ষণ করতে ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রক সাড়ে একত্রিশ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেছে।

সেই কাজ খুব শীঘ্রই শুরু হয়ে যাবে। কাজে কোন ত্রূটি আমরা রাখতে চাই না। কাজ করতে গিয়ে যদি আরও অর্থের প্করয়োজন হয়  সেই অর্থও বরাদ্দ করা হবে। এই বিষয়ে বিভাগীয় মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেনের সঙ্গে কথাও হয়। এ্ই অনুষ্ঠানে কথা সাহিত্যিক তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের তরফ থেকে বেশ কিছু সামগ্রী ধাত্রী দেবতায় তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামাঙ্কিত   সংগ্রহ শালার জন্য লাভপুর পঞ্চায়েত সমিতির হাতে তুলে দেওয়া হয়। এদিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সাহিত্যিক জয়া মিত্র। এদিন তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধায়ের স্মৃতি চারণা করেন তাঁরই উপন্যাসের জীবন্ত চরিত্র ডাঃ সুকুমার চন্দ্র। এই উপলক্ষ্যে নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ী ধাত্রী দেবতায়।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment