কলকাতা 

আন-এডেড মাদ্রাসার স্বীকৃতির দাবিতে মিছিল করতে গিয়ে গ্রেফতার মইদুল ইসলাম সহ কয়েকশো শিক্ষক , পুলিশি নির্যাতনের অভিযোগ , অস্বীকার লালবাজারের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আন-এডেড মাদ্রাসাগুলিকে স্বীকৃতির দাবিতে আজ মঙ্গলবার কলকাতায় মহামিছিলের ডাক দেয় শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ । এই মঞ্চের নেতা মইদুল ইসলামের নেতৃত্বে চেতলা থেকে হাজরা পর্যন্ত মহামিছিলের ডাক দেওয়া হয় । মহামিছিলের শুরু থেকেই পুলিশ আক্রমণাত্মক ছিল বলে সংগঠনের নেতাদের অভিযোগ ।

শিক্ষক নেতা মইদুল ইসলামের অভিযোগ পুলিশ তাদেরকে টেনে হিঁচড়ে গাড়িতে জোর করে তোলে । শান্তিপূর্ণ মিছিলে বাধা দেয় । মইদুল ইসলামের দাবি  হেষ্টিংসে ২৫০ জন , লালবাজারে ১৩৭ জন , আলিপুরে ১০০ জন শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ । শিক্ষক নেতা মইদুল ইসলাম সহ ১৩৭ জনকে লালবাজারের সেন্ট্রাল লক-আপে আনা হয় ।

 

মাদ্রাসার শিক্ষকদের উপর এই ধরনের আক্রমনের তীব্র নিন্দা করেছেন সব বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারা । তাঁদের মতে , এরা শান্তিপূর্ণভাবে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দাবি জানাচ্ছিলেন । মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন আন-এডেড হিসাবে দশ হাজার মাদ্রাসাকে অনুমোদন দেওয়া হবে । কিন্ত তা দেওয়া হয়নি । বরং মাত্র দুহাজার মাদ্রাসা আবেদন করেছিল । তার মধ্যে ২৩৪টিকে স্বীকৃতি দিয়েছে সরকার । সাড়ে ছশো মাদ্রাসাকে জেলার ডিএলআইটি টিম অনুমোদন দেওয়া যেতে পারে বলে সুপারিশ করেছিল । তারপরেও কোনো এক অজানা কারণে এই সব মাদ্রাসাগুলিকে অনুমোদন দেওয়া হয়নি ।

এক প্রশ্নের উত্তরে মইদুল ইসলাম বলেন , মাদ্রাসার অনুমোদনের সুপারিশ করার জন্য ডিএলআইটি টিম গঠন করা হয় । এই টিমে সরকার মনোনীত ব্যক্তিরাই সদস্য ছিলেন । তাদের সুপারিশ সত্ত্বে কেন অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে না ? আমরা তো সরকারকে আর্থিক সাহায্য অনুমোদন দিতে বলছি না , আমরা আন-এডেড মাদ্রাসা হিসাবে স্বীকৃতির কথা বলছি । কেন তা দেওয়া হচ্ছে না ? প্রশ্ন মইদুলের ।

অবশ্য সংগঠনের পক্ষ থেকে পুলিশি নির্যাতনের অভিযোগ করা হলেও লালবাজারের পক্ষ থেকে তা অস্বীকার করা হয়েছে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment