কলকাতা 

মইদুলের নেতৃত্বে অনুমোদনহীন আন-এডেড মাদ্রাসাগুলিকে অনুমোদন দেওয়ার দাবিতে কলকাতায় মহামিছিল মঙ্গলবার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পর দশ হাজার মাদ্রাসাকে আন-এডেড হিসাবে সরকারী স্বীকৃতি দেওয়ার  প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন । তিনি বলেছিলেন, সরকারের আর্থিক ক্ষমতা নেই সরাসরি মাদ্রাসাগুলি সরকারি এডেড মাদ্রাসায় পরিণত করার । কিন্ত সরকার সীমিত ক্ষমতার বলে তাদেরকে সরকার অনুমোদন আন-এডেড হিসাবে দিলে তাতে অনেক সুবিধা পাওয়া যাবে । যেমন মিড ডে মিল , পরিকাঠামো খাতে অর্থ , বিজ্ঞান পড়ানোর জন্য কেন্দ্রীয় বরাদ্দ , সাংসদ -বিধায়ক কোটার টাকা পাবে ওই সরকার অনুমোদিত আন-এডেড মাদ্রাসাগুলি ।

মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর সংখ্যালঘু সমাজে খুশির জোয়ার দেখা যায় । কিন্ত দশ হাজার মাদ্রাসাকে আন-এডেড হিসাবে অনুমোদন দেওয়ার কথা বলা হলেও শেষ পর্যন্ত মাত্র ২৩৪টি মাদ্রাসাকে আন-এডেড হিসাবে সরকার স্বীকৃতি দেয় । ইতিমধ্যে প্রায় সাড়ে ছ’শো মাদ্রাসাকে ডিএল আইটি টিম অনুমোদন দেওয়া সত্ত্বে সরকার এই সব মাদ্রাসাকে আন-এডেড হিসাবে স্বীকৃতি দেয়নি । আর এনিয়ে সংখ্যালঘু সমাজে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে ।

২৩৪টি স্বীকৃতি আন-এডেড মাদ্রাসাকে সরকার কিছুটা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে । ওই মাদ্রাসার শিক্ষকরা আন্দোলনের হুমকি দেওয়ার পরেই ৩১ কোটি টাকা সম্প্রতি বরাদ্দ করা হয়েছে । কিন্ত বাকী সাড়ে ছ’শো মাদ্রাসার স্বীকৃতি আন-এডেড হিসাবে দেওয়ার দাবিতে এবার রাস্তায় নামতে চলেছেন এই সব মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষিকারা । শিক্ষক নেতা মইদুল ইসলামের নেতৃত্বে আগামী ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার কলকাতায় মহামিছিলের আয়োজন করা হয়েছে । এই মিছিলে কয়েক হাজার শিক্ষক হাজির থাকবেন বলে জানা গেছে ।  মইদুল ইসলাম বাংলার জনরবকে বলেন , আমাদের দাবি হল এই মাদ্রাসাগুলিকে জেলার মাদ্রাসা অনুমোদন কমিটি বা ডি এল আইটি টিম স্বীকৃতি দেওয়ার পরেও কেন আন-এডেড হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়া হচ্ছে না ? কেন কয়েক বছর ধরে এদের সামান্য স্বীকৃতি আটকে রেখেছে ? তাই আমরা পথে নামতে বাধ্য হচ্ছি ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment