জেলা 

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির শুভেচ্ছা বার্তা পাঠ করার পর শ্যামা-পুজার উদ্বোধন , প্রখ্যাত নায়িকা লাডলি মিত্র রায়ের ভাষন এবং গান সকলকে মুগ্ধ করে

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আজ উলুবেড়িয়া পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের রাজাপুর থানার খলিশানী কালীতলাতে শ্যামাপুজার উদ্বোধন হলো ।খলিসানী আর জি পাটির উদ্যোগে এই বিখ্যাত শ্যামাপুজার উদ্বোধনে জাতি ধর্ম দলমত নির্বিশেষে সামাজিক দূরত্ব মেনে বহু মানুষের সমাগম হয়।এই উপলক্ষে জাতীয় সংহতির উপর এক সভা হয়।

শ্যামাপুজার উদ্বোধন করেন চলচ্চিত্র /সিরিয়ালের প্রখ্যাত নায়িকা লাডলি মিত্র রায় (হাওড়া জেলা গ্রামীন পুলিশ সুপার IPS শ্রী সৌম্য রায়ের সহধর্মিণী )।তিনি তাঁর ভাষণে শ্যামা মায়ের আরাধনার তাৎপর্য ব্যাখা করেন ।তিনি বলেন, উৎসবের মধ্যে দিয়ে আমাদের সম্প্রীতি গড়ে উঠে এবং দূঢ হয়। ২০১৫ সালে এখানকার শ্যামাপুজাতে আমার আসার সৌভাগ্য হয়েছিল ।আজ প্রাক্তন সাংসদ বর্তমান উলুবেড়িয়া পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ইদ্রিশ আলির আন্তরিকতায় আজকের এই পবিত্র জায়গায় এসে শ্যামা মায়ের পুজার মন্ডপ উদ্বোধন করে নিজে খুব ভাল লাগছে ।এখানকার মানুষ খুব ভালো, রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী আপনারা মাস্ক পরে এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে যে পুজা করছেন তা সবদিক থেকেই অভিনন্দন যোগ্য ।

আর জি কর্ণধার শিক্ষক সমর মান্না বলেন, হাওড়া জেলার মধ্যে নাম করা এই অন্যতম পুজা আমরা বরাবরই বিশাল আকারের করি ।কিন্তু করোনা আবহের ফলে এবার আমরা সরকারি নিয়ম মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শ্যামা মায়ের আরাধনা করছি ।
রিসেপশন কমিটির চেয়ারম্যান ইদ্রিশ আলিকে দেওয়া , মুখমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির লেখা শুভেচ্ছা বার্তাটি শ্রী মান্না সকলকে পড়ে শুনান ।তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান ।
উলুবেড়িয়া পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক তথা খলিশানী আর জি রিসেপশন কমিটির চেয়ারম্যান ইদ্রিশ আলি বলেন, কোন উৎসবই একটি ধর্মের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না। তাই শ্রী সমর মান্নার উদ্দ্যোগে এই শ্যামাপুজার উৎসব ভালোভাবে প্রমাণ করে দিল, সব ধর্মের মানুষকে নিয়ে ধর্মীয় উৎসব করা যায়।বিধায়ক ইদ্রিশ আলি বলেন, আমাদের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির প্রতীক ।তাঁর ১০ই নভেম্বর ২০২০তে লেখা শ্যামাপুজা ও দীপাবলির শুভেচ্ছা এবং বানী আমাদের সকলকে মুগ্ধ করেছে ।আমরা তাঁর প্রতি চিরকাল কৃতজ্ঞ থাকবো । শ্রীমতী লাডলী মিত্র রায়ের কাছেও কৃতজ্ঞ কারন তিনি শুটিং করতে ব্যস্ত থাকা সত্ত্বেও আমাদের এই অনুষ্টানে এসেছেন, তাঁকে বহু দিন ধরে চিনি অত্যন্ত্য সহজ, সরল জনপ্রিয় নায়িকা।

বিধায়ক ইদ্রিশ আলি হাওড়া জেলার গ্রামীণ পুলিশ সুপার IPS শ্রী সৌম্য রায়ের ভূয়সী প্রশংসা করেন ।তিনি তাঁর নেতৃত্বে পুলিশ ভালো কাজ করাই এখানে সব উৎসবই শান্তিতে পালিত হচ্ছে এবং মানুষ শান্তিতে আছেন ।তিনি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শ্রী ইন্দ্রিজিত সরকার, SDPO অনিমেষ রায় এবং রাজাপুর থানার ওসি শ্রী অজয় সিং এর প্রশাসনিক দক্ষতার প্রশংসা করেন ।
অন্যদের মধ্যে এই অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন হাওড়া জেলা গ্রামীন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শ্রী ইন্দ্রিজিত সরকার, SDPO অনিমেষ রায় ,রাজাপুর থানার ওসি শ্রী অজয় সিং, মহিলা পুলিশ আই সি বনানী রায়, উলুবেড়িয়া পৌরসভার কো-অডিনেটর ইনামুর রহমান, শ্রী গৌর মন্ডল, শ্রী সিটু দাস, পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা চন্দনা মন্ডল, স্হানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সেখ দুলাল, সেখ রাজু, সেখ বাবু, সেখ আসিফ রহমান, সেখ জিয়াউল রহমান, সেখ সুরুজ প্রমুখ ।উল্লেখ থাকে দুই পুরোহিত, ভোলানাথ চক্রবর্তী এবং নিমাই ভট্টাচার্য কে সম্বর্ধনা দেন উলুবেড়িয়া পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ইদ্রিশ আলি ।


প্রখ্যাত চলচ্চিত্র তথা সিরিয়ালের অভিনেত্রী লাডলী মিত্র রায়ের বক্তব্যে এবং তাঁর মধুর কন্ঠের একটি গান সকলকে মুগ্ধ করে ।কর্তৃপক্ষের ও  সাধারণ মানুষেরা অনুরোধ জানান যে নায়িকা লাডলি মিত্র রায়ের হাসিমুখ, ভালো ব্যবহার এবং সুন্দর গান আমাদের চিরকাল মনে থাকবে ।পরে বড় অনুষ্ঠানে তাকে আবার নিয়ে আসার অনুরোধও জানানো হয়।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment