কলকাতা 

তপশিয়ায় ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই ৫০টি ঝুপড়ি , বে-ঘর হলেন প্রায় ৩০০ জন , ঘটনাস্থলে মুখ্যমন্ত্রী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৫০ টিরও বেশি ঝুপড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেল । আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টেয় তপশিয়ার দাতাবাবার মাজার সংলগ্ন এলাকার বস্তিতে আগুন লেগে যায় । এই আগুনে প্রায় ৫০টি ঝুপড়ি পুড়ে যায় । খালপাড়ের ওই ঝুপড়িগুলোতে প্রায় ২৫০-৩০০ মানুষ বসবাস করতেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, এ দিন বিকেল ৪টে নাগাদ প্রথম তাঁরা আগুন দেখতে পান। সঙ্গে সঙ্গে দমকলকে খবর দেওয়া হয়। স্থানীয়রা নিজেরাই আগুন নেভাতে শুরু করেন। কিন্তু বাঁশ, কাঠ এবং পলিথিন দিয়ে তৈরি ঝুপড়িগুলোতে দ্রুত আগুন ছড়াতে থাকে। দমকলের ১২টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। তবে দমকল পৌঁছনোর আগেই ছাই হয়ে যায় অধিকাংশ ঝুপড়ির কাঠামো।

ঝুপড়িগুলোর সামনেও প্রচুর দাহ্য পদার্থ মজুত করে রাখা ছিল বলে দাবি দমকলকর্মীদের। ফলে খুব তাড়াতাড়ি আগুন ছড়িয়ে যায় বলে জানিয়েছেন দমকলকর্মীরা। স্থানীয় বাসিন্দারাও জানিয়েছেন, ঝুপড়ির বাসিন্দারা পুরনো রাসায়নিকের ড্রাম, পলিথিন এ ধরণের জিনিসের ব্যবসা করেন। সেই কারণে প্রচুর দাহ্য পদার্থ জমা ছিল ঝুপড়িগুলোর সামনে। আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে বাসিন্দারা সকলেই বেরিয়ে আসতে পেরেছিলেন। ফলে বাসিন্দারা সকলেই নিরাপদে আছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 এলাকার বিধায়ক জাভেদ আহমেদ খানের নির্দেশে যেমন বহু স্থানীয় যুবক নেমে পড়ের আগুন নেভাতে তখন এসে পড়ে দমকলের একের পর এক ইঞ্জিন। ৬-৭টি ইঞ্জিনও আগুন নেভানোর কাজ করে ।

খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘটনাস্থলে  আসেন। মুখ্যমন্ত্রী আসার পরেই আরও ৮ ইঞ্জিন এসে আগুন নেভানোর কাজে লেগে যায়।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মানবিক মুখের প্রমাণ পেয়ে খুশি এলাকার সংখ্যালঘুরা । খুশি সবহারা মানুষগুলি । মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন ঝুপড়িবাসীদের সাহায্যে ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment