দেশ 

“আপ লোগো কী অন্দরমে মেরে লিয়ে নাফরৎ হ্যায়, আপ মুঝে পাপ্পূ আউর বহুত গালি দে বুলা শাকতি হ্যায় । লেকিন মেরে অন্দর আপকি লিয়ে নফরৎ নেহি হ্যায় “সংসদে রাহুল গান্ধীর এই ভাষনে কুপোকাৎ মোদী বাহিনী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিবেদক : আজ লোকসভায় মোদী  সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে বক্তব্য রাখতে গিয়ে চাচাঁছোলা ভাষায় মোদী সরকারের সমালোচনা করার পাশাপাশি এক নতুন রাজনৈতিক সৌজন্যের নজীর গড়লেন রাহুল গান্ধী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমনের পর আক্রমণ করেই শুধু ক্ষান্ত হননি কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী । তিনি ভাষণ শেষ করেই মোদীকে আলিঙ্গন করে বলে ওঠেন এটাই প্রকৃত হিন্দুত্ব। একই সঙ্গে সংসদের সব দলের সাংসদদের কাছ থেকে তিনি অভিনন্দন কুড়িয়ে নেন। তিনি তাঁর ভাষণ শেষ করার আগে বলেন, আপনারা আমাকে ঘৃণা করতে পারেন । আমাকে না ভালবাসতে পারেন। কিন্ত আমি আপনাদের ভালবাসব। সবাইকে সেই ভালবাসা দিয়ে জয় করে নেব। “ আপ লোগো কী অন্দর মেরে লিয়ে নাফরৎ হ্যায়, আপ মুঝে পাপ্পূ আউর বহুত গালি দে বুলা শাকতি হ্যায় । লেকিন মেরে অন্দর আপকি লিয়ে নফরৎ নেহি হ্যায় ”। এরপরেই রাহুল গান্ধী নিজের আসন থেকে উঠে মোদী কাছে গিয়ে তাঁকে আলিঙ্গন করেন।

কিন্ত রাহুল শুরুটা করেছিলেন অন্যভাবে । একেবারে আক্রমনাত্মক ভূমিকায় । নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে অমিত শাহ-র পুত্র এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন পর্যন্ত সবাইকে তীব্র ভাষায় এবং যুক্তিজালে সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন। রীতিমত চ্যালেঞ্জ জানিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মিথ্যা কথা বলছেনও বলে ভাষণে উল্লেখ্য করেন। তিনি এদিন সংসদে প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করে বলেন, আপনি চৌকিদার নন, দূর্নীতির ভাগীদার। কৃষকরা যেহেতু স্যুট-বুট পরেননি তাই তাদের ঋণ মুকুব করা হয়নি। দেশের ১০/১২ টি বড় ব্যবসায়ীদের স্বার্থ রক্ষা করতে ব্যস্ত মোদী সরকার। তিনি আরও বলেন, দেশর সাধারন মানুষের বাক স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছে মোদী-অমিত শাহ জুটি। তিনি মোদী সরকারের তীব্র সমালোচনা করে বলেন, এই সরকারের সবটাই মিথ্যা। প্রথম মিথ্যা ২ কোটি বেকারের চাকরি,হয়েছে মাত্র ৪ লক্ষ চাকরি। দ্বিতীয় মিথ্যা সবার অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী সেটা কেউ পায়নি। তিনি প্রতিরক্ষা দপ্তরকে চ্যলেঞ্জ করে বলেন, ফ্রান্সের সঙ্গে কোন গোপন চুক্তি,সেদেশের প্রধানমন্ত্রী একথা তাকে জানিয়েছেন। তিনি জিএসটি নিয়ে বলেন,কংগ্রেস সরকার জিএসটি যখন আনতে চেয়েছিল তখন বিজেপি বিরোধীতা করেছিল ,আজ সেই বিজেপি সরকারই জিএসটি লাগু করেছে।রাহুল গান্ধীর ভাষনে যখন এভাবে তীব্র কটাক্ষ ও ব্যঙ্গ উঠে আসছে তখনও কেউ কল্পনা করতে পারেননি শেষে তিনি গান্ধীজির আদর্শ মেনে ভালাবাসার বানী শোনাবেন। তাঁর “আপ লোগো কী অন্দর মেরে লিয়ে নাফরৎ হ্যায়, আপ মুঝে পাপ্পূ আউর বহুত গালি দে বুলা শাকতি হ্যায় । লেকিন মেরে অন্দর আপকি লিয়ে নফরৎ নেহি হ্যায় ”।

এই কথার ফুলঝুরিতে কুপোকাৎ হয়েছে আজকের মোদী বাহিনী। সংসদের প্রতিটি সাংসদের মনকে রাহুল ভালবাসার বানী দিয়ে জয় করে নিয়েছেন। একই সঙ্গে তাঁকে পাপ্পূ কটাক্ষের উত্তরে নরেন্দ্র মোদীকে যেভাবে রাহুল বুকে জড়িয়ে জবাব দিলেন তারপর নরেন্দ্র মোদীর আর কিছু বলার ছিল না। ভারতের চিরন্তন ঐতিহ্য মেনেই মোদীজিও রাহুলের পিঠ চাপড়ে দিয়ে বাহবা দিয়েছেন। বহুদিন পর ভারতীয় সংসদে বিরোধী ও শাসক দলের মধ্যে নজীরবিহীন সৌজন্য দেশবাসী প্রত্যক্ষ করল।

 

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment