কলকাতা 

বেসরকারি স্কুলগুলির ফি মকুবের আবেদন খারিজ করে ১৫ আগস্টের মধ্যে বকেয়া মেটানোর নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  বেসরকারি স্কুলে বেতন বাড়ানো নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে অশান্তি লেগেছিল। দিনের পর বিক্ষোভ-মিছিল চলছিল । ফি কমানোর দাবিতে অভিভাবকরা পথে নেমেছে । রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী কয়েকবার ফি না বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন । মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য ছিল লকডাউনের সময় সাধারন মানুষের হাতে টাকা নেই , এই পরিস্থিতিতে বেতন বাড়ানো যাবে না ।  তারপর বেসরকারি স্কুলগুলিতে বেতন বাড়ানো নিয়ে জনস্বার্থে কলকাতা হাইকোর্টে  এক মামলা হয় ।

মঙ্গলবার সেই মামলার রায় দিল কলকাতা হাইকোর্ট নির্দে,শ দিয়েছে আগামী ১৫ অগাষ্টের মধ্যে যত টাকা বকেয়া পড়ে রয়েছে তার অন্তত আশি শতাংশ মিটিয়ে দিতে হবে অভিভাবকদের।করোনা (Corona Virus) সংক্রমণ রুখতে চলতি বছরের মার্চে জারি হয়েছে লকডাউন। সেই থেকেই বন্ধ স্কুল। সেই কারণে অভিভাবকরা দাবি করেছিলেন যে, স্কুল যেহেতু বন্ধ তাই আপাতত টিউশন ফি ছাড়া বাকি যে খাতে টাকা নেওয়া হয়, তা মকুব করুক কর্তৃপক্ষ। নিজেদের দাবি জানিয়ে পথেও নেমেছিলেন অভিভাবকরা। শহর থেকে জেলা রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিক্ষোভ-অবরোধের ছবিও উঠে এসেছিল। এরপরই দায়ের হয়েছিল জনস্বার্থ মামলা।

মঙ্গলবার কলকাতা হাই কোর্টে বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও মৌসুমি ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ খারিজ করে দিল অভিভাবকদের ফি মকুবের আবেদন। উলটে বকেয়া মেটানোর সময়সীমাও বেঁধে দিয়েছে আদালত। ৩১ জুলাই পর্যন্ত যে পরিমাণ টাকা বকেয়া হয়েছে ১৫ অগাষ্টের মধ্যে তার অন্তত ৮০ শতাংশ মেটাতে হবে, এমনই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাঁদের সামর্থ্য রয়েছে তাঁদের পুরো টাকাই মেটানোর নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment