কলকাতা 

মাদ্রাসার শিক্ষক রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর তদন্ত রিপোর্ট সিআইডির কাছে তলব করল হাইকোর্ট

শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিবেদক : উত্তর দিনাজপুরের রাহাতপুর হাইমাদ্রাসার শিক্ষক রাজকুমার রায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রিসাইডিং অফিসার হিসেবে কাজ করতে গিয়েছিলেন । অভিযোগ বুথের কাছ থেকে তাঁকে অপহরণ করা হয়। পরে তাঁর লাশ রায়গঞ্জ স্টেশন এলাকা থেকে পাওয়া যায়। অভিযোগ প্রশাসনকে বারবার বলা সত্তে নাকি রাজকুমার রায়কে খুজে বের করার কোন তাগিদ দেখা যায়নি । তাঁর লাশ পাওয়ার পর পরিবারের পক্ষ থেকে খুনের অভিযোগ করা হলেও স্থানীয় থানা এ বিষয়ে তেমন কোন তদন্ত করেনি বলে অভিযোগ। পরে অবশ্য এই তদন্তভার সিআইডি-র হাতে দেওয়া হয়েছে । তাতেও রাজকুমার রায়ের পরিবার সন্তুষ্ট নয়। তাই সঠিক ও নিরপেক্ষ তদন্তের দাবিতে রাজকুমার রায়ের মা অন্নদা রায় কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

আজ এই মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তীর সিঙ্গল বেঞ্চ সিআইডিকে নির্দেশ দিয়েছে, রাজকুমার রায়ের মৃত্যু তদন্তে কী অগ্রগতি হয়েছে তার রিপোর্ট আগামী ১৩ জুলাইয়ের মধ্যে কলকাতা হাইকোর্টে জমা দিতে হবে। এদিকে রাজকুমার রায়ের মায়ের আইনজীবী আজ কলকাতা হাইকোর্টে অভিযোগ করেন, রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর ঘটনায় কোন তদন্তই হয়নি। ১৪ মে রাজকুমারবাবুকে বুথ থেকে অপহরণ করে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। কিন্ত রাজ্য নির্বাচন কমিশন এনিয়ে থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করেনি। পরের দিন ১৫ মে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় বিডিও-র কাছে অভিযোগ করা হয়। আর সেদিনই রায়গঞ্জ ষ্টেশনের কাছে রাজকুমারবাবুর ক্ষতবিক্ষত লাশ পাওয়া যায়। এরপর ১৬ মে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় এফআইআর করা হয়। অবশ্য আদালতে এদিনও সরকারি আইনজীবী দাবি করেন রাজকুমার রায় খুন হননি, তিনি আত্মহত্যা করেছিলেন। দুপক্ষের সওয়াল জবাব শোনার পর বিচারপতি সিআইডিকে তদন্তের অগ্রগতির রিপোর্ট দিতে বলেন।


শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment