কলকাতা 

যাদবপুরে প্রবেশিকা পরীক্ষা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে ক্ষোভে ফেটে পড়েছে পড়ুয়া থেকে সুশীল সমাজ

শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিবেদক : যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের রাতারাতি ভোল বদল করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভর্তির জন্য কোন প্রবেশিকা পরীক্ষা হবে না, উচ্চ-মাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতেই স্নাতকস্তরে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হবে । যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসমিতির এই সিদ্ধান্তে আবার নতুন করে আন্দোলন শুরুর সংকেত পাওয়া যাচ্ছে । এ বছর ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকেই প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়া হবে না বলে জানানো হয়েছিল। পরে যাদবপুরের কলা বিভাগের পড়ুয়াদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্বাবদ্যালয় কর্তৃপক্ষ । সেই মতই সব ঠিকঠাক চলছিল হঠাৎ বুধবার কর্মসমিতির বৈঠকের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার জানিয়ে দেন, এ বছরে কোন ভর্তি পরীক্ষা হবে না। উচ্চ-মাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধা তালিকা তৈরি করা হবে । সেই মেধা তালিকা অনুসারে ভর্তি নেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসমিতির এই সিদ্ধান্তে পড়ুয়াদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তাদের বক্তব্য পড়ুয়াদের আন্দোলনের চাপে কলা বিভাগের ছটি বিষয়ে প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কীভাবে রাতারাতি সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয় তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যাদবপুরের পড়ুয়ারা।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসমিতির বৈঠকে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা যাদবপুরের প্রবেশিকা পরীক্ষা তুলে দেওয়া নিয়ে এবার সুশীল সমাজ প্রশ্ন তুলেছে । বিশ্বভারতীর প্রাক্তন উপাচার্য আনন্দদেব মুখোপাধ্যায় থেকে শুরু করে সুকান্ত চৌধুরি ও রাজনীতিবিদ সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য প্রত্যেকেই যাদবপুরে ভর্তির প্রবেশিকা পরীক্ষা তুলে দেওয়ার সমালোচনা করেছেন। সুকান্ত চৌধুরি প্রশ্ন তুলেছেন, কার নির্দেশে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এতদিনে পরম্পরা প্রবেশিকা পরীক্ষাকে তুলে দেওয়া হল তা জানতে  হবে বা কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেছেন,আমাদের রাজ্যে ভাগাড়ের শিক্ষা ব্যবস্থা চলছে । আনন্দদেব মুখোপাধ্যায় বলেছেন, যাদবপুরের এই সিদ্ধান্তে এর প্রভাব পড়বে শিক্ষা ব্যবস্থার ওপর।


শেয়ার করুন
  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment