কলকাতা 

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিন সফর বাতিল হওয়ায় মোদীজির কূটনৈতিক ব্যর্থতাকে প্রকট করেছে

শেয়ার করুন
  • 19
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরি : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শেষ মুহুর্তে চিন সফর বাতিল করে দিলেন। জানা গেছে, ভারত সরকারের পক্ষে এক প্রতিনিধি দল নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চিনের সরকারি প্রতিনিধিদের সঙ্গে রাজনৈতিক মতাদর্শগত বিষয় নিয়ে আলোচনা করার কথা ছিল। আজ রাতেই তিনি ৩০ জন প্রতিনিধি নিয়ে চিন সফরের উদ্দেশে রওয়ানা হওয়ার কথা ছিল। কিন্ত তিনি চিনে গিয়ে কোন কোন সরকারি প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তা শুক্রবার বেলা ৩.৩০টে পর্যন্ত জানতে না পারায় তিনি সফর বাতিল করে দেন। পরে সাংবাদিকদের মুখ্যমন্ত্রীর অন্যতম সফর সঙ্গী অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র বলেন,সফরে গিয়ে চিনের কোন কোন সরকারি প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক হবে তা আমরা বৃহস্পতিবার পর্যন্ত জানতে পারিনি। তাই রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় দে বিষয়টি নিয়ে চিনে অবস্থিত ভারতের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি ১২.৩০টার মধ্যে জানাবেন বলে জানান। কিন্ত বিকেল সাড়ে তিনটে পর্যন্ত এ বিষয়ে কোন কিছু জানানো হয়নি। তাই বেলা ৫.৩০ টা নাগাদ জানানো হয় মুখ্যমন্ত্রীর চিন সফর বাতিল।

মুখ্যমন্ত্রীর এই চিন সফর বাতিলে আসলে মুখ পুড়ল কেন্দ্রীয় সরকারের। কারণ মুখ্যমন্ত্রী দেশের প্রতিনিধি দলের নেতা হিসেবে তিনি চিন সফরে যাচ্ছিলেন। কিন্ত শেষ মুহুর্তে চিন কেন আলোচনার বিষয়বস্তু ও সূচি জানালেন না, তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্র সরকারের দিকেই আঙুল উঠবে। নরেন্দ্র মোদীর যে বিদেশনীতি সম্পূর্ণ ব্যর্থ তা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোন অবকাশ নেই।

মোদীজির সরকারের প্রতিনিধিদলকে এভাবে অপমান করার মানে হচ্ছে ,চিন যে ভারত সরকারকে গুরুত্ব দিতে চাইছে না তা এই ঘটনায় আর একবার প্রমানিত হল। যদিও কলকাতার চিনা উপদূতাবাস থেকে বলা হয়েছে যে, চিনে সব আয়োজন সম্পূর্ণ ছিল কোথাও কোন ত্রূটি ছিল না। তা সত্ত্বে পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রীর এই সফর বাতিল হওয়ায় তারা দুঃখিত। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন,সরকারি প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা ছাড়া এমনি বেড়াতে যাওয়া অর্থহীন। যাইহোক না কেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো আসলে ভারতেরই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন তার সফর বাতিল হওয়া মানে সেটা ভারতের কাছে দুঃখের বিষয়। আর এর দায় কোনভাবেই দেশের বিদেশমন্ত্রী কিংবা প্রধানমন্ত্রী অস্বীকার করতে পারবেন না। আলোচনার কর্মসূচি ঠিক না করে প্রতিনিধি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া সরকারের উচিত হয়নি।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত বছরও চিন সফরে যেতে চেয়েছিলেন। সেবার কেন্দ্র সরকার অনুমোদন দেয়নি। এবার কেন্দ্র সরকার তাঁকে দেশের প্রতিনিধি দলের নেত্রী করে পাঠাতে চেয়েছিল,কিন্ত চিনের অসহযোগিতায় শেষ মুহুর্তে সফর বাতিল হল। এবারের সফরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে চিনা শিল্পপতিদের বৈঠক হওয়ার কথা ছিল।


শেয়ার করুন
  • 19
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment