কলকাতা 

টালা ব্রিজ ভাঙার কাজ শেষ হচ্ছে ১৫ এপ্রিল

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের জেরে একদিকে যখন কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে মাঝেরহাট ব্রিজের ঠিক তখনই অন্যদিকে টালা ব্রিজ ভাঙার কাজ শেষ হতে চলেছে আগামী ১৫ ই এপ্রিল। এমনটাই খবর নবান্ন সূত্রে। ২০১৮ সালের ৪ঠা সেপ্টেম্বর হঠাৎই ভেঙে পড়ে মাঝেরহাট ব্রিজ। তারপরেই তড়িঘড়ি তাকে সারিয়ে তুলে নতুনভাবে গড়ে তোলার কাজ শুরু হয়ে যায়। মাঝপথে রেলের তরফে কিছু বাঁধাবিঘ্ন থাকলেও সেই বাঁধাবিঘ্নকেও কাটিয়ে উঠে রাজ্য সরকারের তরফে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় নতুন ব্রিজ তৈরি করার কাজ শুরু হয়। অন্যদিকে উত্তর কলকাতা টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার জন্য প্রথমে রাইটস জানায়। এরপর ভি কে রায়না জানান দুমাসের মধ্যেই ভেঙে ফেলতে হবে টালা ব্রিজ। না হলে যেকোনো মুহূর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যাবে।

এমতাবস্থায় ২২ কোটি টাকা মঞ্জুর করা হয় পূর্ত দফতরের পক্ষ থেকে কেবলমাত্র টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার জন্য। করোনাভাইরাস রাজ্য তথা দেশ সহ গোটা বিশ্বে যেভাবে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে সেই জায়গায় রীতিমতো মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। কিন্তু তার মাঝেই চলছে টালা ব্রিজ ভাঙার কাজ। পূর্ত দপ্তর এবং নবান্ন সূত্রে খবর আগামী ১৫ এপ্রিল টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার কাজ শেষ হয়ে যাবে। মাঝেরহাট ব্রিজ এ বাইরে থেকে এসেছিলেন ৬৫ জন শ্রমিক বর্তমানে সেই কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার দরুন তারা আটকে পড়েছেন এখানেই এবং পূর্ত দপ্তরের পক্ষ থেকে তাদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছে। কিন্তু তালা ব্রিজ ভাঙ্গার কাজে সেই অর্থে কোন শ্রমিক না লাগলেও ক্রাশারের মাধ্যমে ভাঙার কাজ চলছে এই ঐতিহাসিক ব্রিজের। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ১২ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে রেলমন্ত্রককে। বাকি আছে আর তিনটি স্ল্যাব ভাঙ্গার কাজ।

নবান্ন সূত্রে খবর আগামী ১৫ এপ্রিলের মধ্যে এই তিনটি স্ল্যাব ভাঙার কাজ শেষ হয়ে যাবে। যদিও তারপর কত দিনে নতুন করে আবার ব্রিজ তৈরির কাজ শুরু হবে তা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। তবে রাজ্য সরকারের তরফে নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে যেকোনো মূল্যে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় টালা ব্রিজকে আবার নতুন করে তৈরি করার কাজ শুরু হবে এমনটাই খবর নবান্ন সূত্রে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment