প্রচ্ছদ 

লোকসভা নির্বাচন এগিয়ে আসছে তৈরি থাকুন, গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বরদাস্ত করা হবে না,যুব নয়,মূল তৃণমূলই শেষ কথা, কোর কমিটির বৈঠকে কড়া নির্দেশ মমতার

শেয়ার করুন
  • 14
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : আজ নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূল কংগ্রেসের কোর কমিটির বৈঠকে দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কার্যত দলীয় কর্মীদের আবার নতুন করে রাজনীতির পাঠ শেখালেন। তিনি ছাত্র-যুব থেকে শুরু করে সর্বস্তরের কর্মীদের বার্তা দিয়ে কার্যত বুঝিয়ে দিলেন জনসংযোগহীন নেতৃত্ব তাঁর প্রয়োজন নেই। তিনি এদিন বলেন,লোকসভা নির্বাচন এগিয়ে আসতে পারে। মনে করা হচ্ছে আগামী ৮ মাসের মধ্যে লোকসভা নির্বাচন হয়ে যেতে পারে। এই পরিস্থিতিতে দলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কোনভাবেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বরদাস্ত করা হবে না বলে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন।

ভর্তির নামে তোলাবাজি চলবে না : ছাত্র রাজনীতির নামে তোলাবাজি কোনভাবেই বরদাস্ত করা হবে না বলে এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন। ছাত্র রাজনীতি মানে টাকা তোলা নয়।

পুরানো কর্মীদের ফিরিয়ে আনতে হবে কিংবা তাদেরকে গুরুত্ব দিতে হবে : দলের কর্মীরা জীবন বাজি রেখে দল করেছেন। কর্মীদের যথাযথ মর্যাদা দিতে হবে। সেই পুরানো কর্মীদের যারা অভিমানে দল ছেড়ে দিয়েছেন তাদেরকে দলের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে হবে।

গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বরদাস্ত করা হবে না : দলের মধ্যে কোনভাবেই গোষ্ঠীকে প্রশয় দেওয়া হবে না। দলের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে মানতে হবে। যারা গোষ্ঠী সৃষ্টি করবে তাদের দল রেয়াত করবে না।

যুব নয়,মূল তৃণমূলই আসল শক্তি : জেলায় জেলায় মূল তৃণমূলের সঙ্গে যুব তৃণমূল তীব্র লড়াই চলছে। এ প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ জানিয়ে দিলেন, মাদার পার্টি হল তৃণমূল কংগ্রেস,যুব তৃণমূল তার শাখা সংগঠন মাত্র। যুবকে মূল তৃণমূল নেতৃত্বের নির্দেশেই চলতে হবে।

পার্টি অফিস হবে একটা : দলের পার্টি অফিস হবে একটা,একাধিক হবে না। দলীয় অনুষ্ঠান একইদিনে একটা হবে ,দুটো হবে না।

কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামতে হবে : কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামতে হবে। ২১ জুলাইয়ের পর পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলন জোরদার করতে হবে।

নিজেদেরকে বড় নেতা বলে ভাববেন না: মমতা এদিন বলেন ,দলের কিছু নেতা আছেন যারা নিজেদেরকে বড় নেতা বলে ভাবছেন। এই ধারনা ত্যাগ করতে হবে। প্রয়োজন হলে এদেরকে বাদ দিয়ে নতুন নেতৃত্ব তুলে আনার পরামর্শ তিনি দেন।

জনসংযোগ বাড়ান : মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানোর পরামর্শ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এদিন বলেন,সাংসদ বিধায়ক ও জনপ্রতিনিধিদের প্রত্যেককে নিজের এলাকার মানুষের সঙ্গে সংযোগ বাড়াতে হবে। যারা জনসংযোগ করতে পারেন না তারা নেতা হতে পারবেন না।

নিশানায় বিজেপি-কংগ্রেস-সিপিএম : এই রাজ্যে কংগ্রেস-বিজেপি-সিপিএম এক হয়ে গেছে। এখানে সিপিএম বিজেপির হাত ধরছে,কংগ্রেস দিল্লিতে বিজেপির বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে অথচ এখানে তারা বিজেপিকে সঙ্গে নিয়ে চলছে বলে মমতা অভিযোগ করেন। বিজেপি দেশজুড়ে লুঠ করছে। এর বিরুদ্ধে আমাদেরকে সরব হতে হবে।

দিলীপকে চ্যালেঞ্জ : বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে এবার সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বললেন,ক্ষমতা থাকে তো এনকাউন্টার করুন। আমরা মোকাবিলা করতে প্রস্তুত।

এদিনের সভায় দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জন্য উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে মাথা ঠান্ডা রাখার পরামর্শ দেন। একইসঙ্গে ঝাড়গ্রাম,পুরুলিয়া সহ কয়েকটি ব্লকে ভোটের ফল খারাপ হওয়ার কারণ অনুসন্ধানের জন্য পাঁচ সদস্যের এক কমিটি এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৈরি করে দেন। এরা দশদিনের মধ্যে ভোটের খারাপ ফলের কারণ অনুসন্ধান করে রির্পোট পেশ করবে দলের সুপ্রিমোর কাছে। তবে তিনি আবারও এদিন বিজেপি আগামী লোকসভা নির্বাচনে ইভিএম কারচুপি করতে পারে বলে অভিযোগ তুলেছেন।


শেয়ার করুন
  • 14
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment