দেশ 

করোনা রুখতে : আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যে চলবে লকডাউন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  আজ মঙ্গলবার লকডাউনের সময় সীমা ২৭ মার্চ থেকে বাড়িয়ে ৩১ মার্চ করে দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । শুধুমাত্র পুর-শহর নয় , সমগ্র রাজ্য-জুড়ে জারি করা হয়েছে লকডাউন । কারণ করোনা সংক্রমণ এখন দ্রুত বাড়ছে এই পরিস্থিতিতে এছাড়া অন্য কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া ছাড়া উপায় নেই ।

দেশজুড়ে করোনা আতঙ্ক। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। লকডাউন ভারত। তারই মধ্যে টুইটে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা, আজ রাত আটটায় ফের জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। করোনা পরিস্থিতিতে আয়কর জমার সময়সীমা বাড়ল কেন্দ্র।

বাংলায় বাড়ল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। ফের দু’জনের শরীরে মিলেছে মারণ ভাইরাস।এদের দু’জনেরই বিদেশ যাত্রার যোগ রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। একজন ফিরেছিলেন মিশর থেকে। অন্যজন, ব্রিটেন থেকে বাংলায় ফিরেছিলেন বলে খবর। ভারতে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৯১। মৃত ১০।

আজ মধ্যরাত থেকে আন্তর্দেশীয় সব উড়ান চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। শহরের পথে পথে পুলিশের নজরদারি। চলছে নাকাচেকিং। রাতেই শতাধিক লকডাউন আগ্রাহ্যকারীকে গ্রেফতার করা হয়। দেশের অধিকাংশ জায়গাতেই একই ছবি। লকডাউন ভাঙলেই কড়া শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে।

পশ্চিমবঙ্গ সরকার জানিয়েছে, লকডাউনের নির্দেশিকা না মানলে আইন মোতাবেক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। নির্দেশ অমান্য করলেই হাজার টাকা জরিমানা বা ৬ মাসের কারাবাসের শাস্তি হবে, এমনটাই জানিয়েছে কেন্দ্র। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৮৮ নম্বর ধারায় এই শাস্তি বলবৎ হবে। তবে, একাংশের তাতেও হুঁশ ফিরছে না।

সোমবারই রাজ্যের প্রথম মারণ ভাইরাসে মৃত্যর ঘটনা ঘটে। কলকাতায় মৃত্যু হয় দমদমের প্রৌঢ়ের।

ডান-বাম সকলে এক হয়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করার কথা বললেন। তবে লকডাউনের সঙ্গে সঙ্গে শ্রমিক ও গরিব মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন জানান বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে কালোবাজারি নিয়েও সরব হয়েছেন তাঁরা। জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্রের কাছে মোরাটোরিয়ামের আবেদন রাখতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment