কলকাতা 

করোনা আতংকে : কোয়ারান্টাইনে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব ও তাঁর স্ত্রী সহ বেশ কয়েক জন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বাংলা করোনা মুক্ত ছিল । তা নিয়ে আমাদের গর্ব ছিল। মমতার রাজ্যে করোনা প্রবেশ করেনি । কিন্ত এক মহিলা আমলার ভুলে তাঁর সন্তানের জন্য আজ পশ্চিমবাংলাতে করোনা ভাইরাস প্রবেশ করল । অথচ ওই সিনিয়র মহিলা ইচ্ছে করলেই বিষয়টিকে এড়াতে পারতেন । তা তিনি করেন নি । বরং নবান্নে গিয়ে বিভিন্ন দফতরের অফিসারদের সঙ্গে বৈঠক করে বিষয়টিকে আরও জটিল করে ফেলেছেন । এমনকি আমাদের রাজ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর বৈঠক করার কারণেই আজ তিনি গৃহবন্দী । শুধু তিনি নন , তাঁর স্ত্রী কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোনালী বন্দ্যোপাধ্যায়ও বাড়িতে বন্দী রয়েছেন ।

সূত্রানুসারে বুধবার একথা জানা গিয়েছে। সোমবার ওই মহিলা আধিকারিক স্বরাষ্ট্র দফতরে এসেছিলেন। তাঁর ছেলের শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত ওই আধিকারিকদের নবান্নে আসতে নিষেধ করা হয়েছে বলে সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছে সূত্র।আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও কয়েক জন আধিকারিক এবং কয়েক জন গ্রুপ ডি-কর্মীকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়, যিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তিনিও বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন।

রাজ্য সরকারের এক সিনিয়র আধিকারিক জানাচ্ছেন, ‘‘এটা করা হয়েছে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে। এবং যাঁরাই ওই মহিলার সংস্পর্শে এসেছেন তাঁদেরই নিজেদের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে।”

করোনা আক্রান্ত ১৮ বছরের ওই তরুণ ইংল্যান্ড থেকে ফিরেছেন রবিবার। মঙ্গলবার তাঁর শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। রাজ্যে এটিই প্রথম করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা। ওই তরুণ উচ্চশিক্ষার জন্য ইংল্যান্ডে গিয়েছিলেন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment