দেশ 

জননেতা , সংগঠক ও প্রশাসক হিসেবে জ্যোতিরাদিত্যের অবদান সামান্য : প্রশান্ত কিশোর

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কংগ্রেস নেতা মাধব রাও সিন্ধিয়ার পুত্র জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া পরিবার সূত্রেই কংগ্রেসের নেতা হয়েছিলেন । সেই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া কংগ্রেস ত্যাগের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরেই এই কারণেই বিধলেন প্রশান্ত কিশোর । তিনি বলেছেন , জননেতা , সংগঠক ও প্রশাসক হিসেবে জ্যোতিরাদিত্যের অবদান সামান্য ।

টুইট করে তাঁর কটাক্ষ, “গান্ধি পদবিতে যাঁদের আপত্তি তাঁরাই সিন্ধিয়ার মধ্যে নেতাকে খুঁজতে চাইছেন। কিন্তু বাস্তব হল সিন্ধিয়া পদবি হলেও জননেতা, সংগঠক ও প্রশাসক হিসেবে জ্যোতিরাদিত্যের অবদান সামান্য।” জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন জ্যোতিরাদিত্য। তারপরেই কংগ্রেস ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সোনিয়া গান্ধিকে পাঠানো তাঁর পদত্যাগপত্র প্রকাশ্যে আসার পরই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস । টুইট করে সেই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। গত ৪ বার মধ্যপ্রদেশের গুনা আসন থেকে সাংসদ নির্বাচিত হলেও, এবার পরাজয় হয়েছে জ্যোতিরাদিত্যের। এদিকে, সনিয়া গান্ধিকে পাঠানো পদত্যাগপত্রে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া লিখেছেন, আমি কংগ্রেসের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে ইস্তফা দিচ্ছি। গত ১৮ বছর ধরে দলের অনুগত সৈনিক হিসেবে কাজ করেছি। আমার লক্ষ্য মানুষের স্বার্থে কাজ করা।আগেও করেছি, আগামী দিনেও করব। কিন্তু আমার মনে হচ্ছে কংগ্রেসে থেকে সেই লক্ষ্যপূরণ সম্ভব না।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment