কলকাতা 

শোভনের বিকল্প হিসাবে রত্নাকেই বেছে নিল তৃণমূল ; শোভন তাহলে আর তৃণমূলে ফিরছেন না ?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : শোভন বিজেপি করবেন কিনা তা ভবিষ্যৎ বলবে কিন্ত তৃণমূল নেত্রীর কাছে এটা স্পষ্ট হয়ে গেছে যে, কলকাতার প্রাক্তন মেয়র ও দিদির আদরের কানন আর ঘাষফুলে ফিরছেন না । আপতত তিনি অন্তরালেই থাকবেন । তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাই সিদ্ধান্তটা নিয়েই ফেললেন । শোভনের বিকল্প হিসাবে তাঁর স্ত্রী রত্নাকেই বেছে নিলেন । পুরভোটের মুখে শোভনের কেন্দ্রের দায়িত্ব রত্না চট্টোপাধ্যায়ের কাঁধে তুলে দিল তৃণমূল। পুরভোটে বেহালা পূর্ব কেন্দ্রে দলের প্রচার থেকে কাউন্সিলরদের সঙ্গে সমন্বয়ের কাজ করবেন শোভন-পত্নী। শনিবার রত্নাকে পাশে নিয়ে একথা জানালেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একইসঙ্গে শোভনের উদ্দেশে পার্থর মন্তব্য, ‘‘একজনকে জিতিয়েছিলাম, সে যদি নিষ্ক্রিয় হয়ে থাকে, তাহলে দল তো আর নিষ্ক্রিয় হবে না’’। শোভনের তৃণমূলে ফেরার প্রসঙ্গে এদিনও পার্থ বলেন, ‘‘সেটা তো উনিই বলতে পারবেন’’।

প্রসঙ্গত,  গত বছরের ১৪ অগাস্ট তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে বিজেপিতে যোগ দিলেও পদ্মশিবিরের একাংশের সঙ্গে মনোমালিন্যের জেরে কার্যত ‘অন্তরালে’ শোভন। বিজেপির সঙ্গে দূরত্ব বাড়িয়ে জল্পনা উস্কে গত বছর ভাইফোঁটায় বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়িতে যান ‘কানন’। যদিও তারপরও তৃণমূলের সঙ্গে শোভনের ‘রিইউনিয়ন’ কার্যত ব্রাত্যই রয়ে গিয়েছে।

এদিন রত্নাকে পাশে বসিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘বেহালা পূর্বে যে শূন্যতা সেটা তো দেখতে হবে। দলের সমন্বয়ের কাজ দেখবে রত্না। অনেক কর্মসূচি রয়েছে, সেগুলো এখানে যথাযথভাবে পালন করা হচ্ছে কিনা সেটা রত্না দেখবে’’।  দলের দায়িত্ব পেয়ে রত্না চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘পার্থদা আমার মাথার উপর আছে। উনি যেভাবে গাইড করবেন, সেভাবেই কাজ করব’’।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment