দেশ 

“আমানতকারীদের অর্থ সুরক্ষিত থাকবে”, ইয়েস ব্যাংকের গ্রাহকদের আশ্বাস দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

“আমানতকারীদের অর্থ সুরক্ষিত থাকবে”, ইয়েস ব্যাংকের গ্রাহকদের এই আশ্বাস দিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন । ব্যাংকের সঙ্কটে প্রয়োজনে পাশে দাঁড়াবে রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া, আশ্বাস দিলেন আরবিআইয়ের গভর্নর শক্তিকান্ত দাসও। মূলধন সমস্যা এবং বিপুল অনাদায়ী ঋণের ভারে জর্জরিত ইয়েস ব্যাংক  থেকে ৫০ হাজার টাকার বেশি তোলার উপরে বৃহস্পতিবারই নিষেধাজ্ঞা জারি করে ভারতের শীর্ষ ব্যাংক। ২০২০ এর ৩ এপ্রিল পর্যন্ত এই নয়া নিয়ম লাগু থাকবে বলে জানায় আরবিআই। নয়া ওই ঘোষণার পর ইয়েস ব্যাংকের শেয়ার বাজারে  ধস নামে, ৮৫ শতাংশ কমে যায় তাদের শেয়ারের দাম। ইয়েস ব্যাংকের  এই পরিস্থিতি নিয়ে আরবিআইয়ের গভর্নরকে শুক্রবার প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “আমরা দ্রুত পদক্ষেপ নেব … এবং এই ব্যাংককে বাঁঁচানোর জন্যে আমাদের একটি নির্দিষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে।”

জেনে নিন ১০টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:

  1. আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাসের দাবি, অর্থনৈতিক নিরাপত্তার স্বার্থে বৃহত্তর পর্যায়ের কথা ভেবেই ইয়েস ব্যাংক সংক্রান্ত এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর্থিক ব্যবস্থার সুরক্ষা নিশ্চিত করাই এই সিদ্ধান্তের লক্ষ্য। আরবিআইয়ের গভর্নর এই আশ্বাসও দেন, “সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে তৈরি হওয়া চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে প্রয়োজনে যেকোনও ধরণের হস্তক্ষেপে আরবিআই প্রস্তুত রয়েছে”।
  2. “আরবিআইয়ের গভর্নর আমাকে আশ্বাস দিয়েছেন যে ইয়েস ব্যাংকের কোনও আমানতকারীর অর্থের কোনও ক্ষতি হবে না”, নয়াদিল্লিতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।
  3. তবে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক ইয়েস ব্যাংকের টাকা তোলা নিয়ে নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করার পরে মুম্বইয়ের ওই বেসরকারি ব্যাংকটির শেয়ারের দাম ৮৫ শতাংশ কমে যায়। ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ বা জাতীয় শেয়ার বাজারে এই শেয়ারের দাম ৫.৬৫ টাকার নিচে নেমে গেছে। বৃহস্পতিবার এই ব্যাংকের শেয়ারটি ৩৬.৮০ টাকায় বন্ধ হয়।
  4. ইয়েস ব্যাংকের প্রসঙ্গে আরবিআই জানায় যে, মূলধন বাড়ানোর বিষয়ে লাগাতার ব্যর্থতার কারণে ওই ব্যাংকের আর্থিক সামর্থ্য তথা স্থিতিশীলতা হ্রাস পেয়েছে।
  5. অর্থনৈতিক বিশ্লেষক সংস্থা মুডি’জ কর্পোরেশনের দাবি, আরবিআই-এর স্থগিতাদেশের প্রভাব পড়তে চলেছে ব্যাঙ্কের সব পর্যায়ের গ্রাহকদের। তাদের মতে, ইয়েস ব্যাংক কর্তৃপক্ষের যথা সময়ে সামগ্রিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যর্থতার জেরেই সারা ভারতের ব্যাঙ্কিং নীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
  6. মুম্বই নিবাসী শেয়ার বিশেষজ্ঞ সন্দীপ সাভারওয়ালের দাবি, “এই মুহূর্তে ইয়েস ব্যাংকের শেয়ার কার্যত মূল্যহীন হয়ে পড়েছে”।
  7. “পরিকাঠামোগত পরিবর্তনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত এই শেয়ার কেনাবেচা অনুচিত”, একথা বলে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। এদিকে এসবিআই বৃহস্পতিবার গভীর রাতে জানিয়েছে যে ইয়েস ব্যাংকের শেয়ার কেনার ব্যাপারে সম্মতি জানিয়েছে এসবিআইয়ের পরিচালক বোর্ড।
  8. এদিকে জেপি মরগানের অর্থনৈতিক বিশ্লেষক সৌরভ কুমার বলেন, “আমরা মনে করছি যে এই পরিস্থিতিতে জোর করে বিনিয়োগকারীরা এই ব্যাংকটিকে অধিগ্রহণ করতে চাইবে”। কারণ এই ব্যাংকের শেয়ার দর সাংঘাতিক হ্রাস পেয়েছে।
  9. শুক্রবার সারা বিশ্বেই অর্থনৈতিক মন্দার ছবি দেখা গেছে।দেশীয় শেয়ার বাজারগুলিতেও ধস নেমেছে। করোনা ভাইরাস মহামারীর আকার নেওয়ায় তীব্র লোকসানের মুখোমুখি হয়েছে বিশ্ব বাণিজ্য। ফলে বিশ্বজুড়েই মন্দার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে আবার ইয়েস ব্যাঙ্কের উপর আরবিআইয়ের ওই পদক্ষেপ দালাল স্ট্রিটে নতুন করে আরও উদ্বেগের জন্ম দিয়েছে।
  10. এসএন্ডপি বিএসই সেনসেক্স সূচক শুক্রবার বাজার খোলার প্রথম কয়েক মিনিটের মধ্যেই ১৪৫৯.৫২ পয়েন্ট হ্রাস পেয়ে ৩৭,০১১.০৯ এ পৌঁছে যায় এবং এনএসইয়ের নিফটি আগের তুলনায় ৪৪১.৬০ পয়েন্ট নেমে গিয়ে ১০,৮২৭.৪০ পয়েন্টে গিয়ে দাঁড়ায়। সৌজন্যে এনডিটিভি।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment