দেশ 

বিজেপি বিধায়ক যোগ দিচ্ছেন কি কংগ্রেসে ? মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে গোপন বৈঠক ঘিরে জল্পনা

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কয়েক দিন আগে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস সরকার ফেলে দিতে উদ্যোগ নেয় বিজেপি বলে কংগ্রেস অভিযোগ করে । কিন্ত শেষ পর্যন্ত সব বিধায়ক ফিরে আসায় সরকারের কোনো বিপদ আসেনি । এদিকে এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই মধ্যপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক নারায়ণ ত্রিপাঠি বৃহস্পতিবার রাতে মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের বাড়িতে গিয়ে সাক্ষাৎ করেন ।জানা গেছে কমলনাথের বাড়িতে যাওয়ার আগে বিধানসভার অধ্যক্ষ এনপি প্রজাপতির সঙ্গে দেখা করেছেন নারায়ন ত্রিপাঠি৷ কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে বিজেপি বিধায়কের আগমণ ঘিরে চরম কৌতুহল তৈরি হয়েছে৷

কয়েকদিন আগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিপক্ষে বক্তব্য রেখেছিলেন এই বিজেপি বিধায়ক৷ সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘বাবাসাহেব অম্বেডকর প্রণেত সংবিধান মেনে চলব, না সেটা কুটি কুটি করে ছিঁড়ে ফেলে দেব, আগে তা ঠিক হওয়া দরকার। সংবিধানে বলা রয়েছে, ধর্ম নিরপেক্ষ দেশে ধর্মের নিরিখে কোনও বিভাজন চলবে না। তার পরেও এ সব চলছে। এতে একটা জিনিসই বোঝায়, হয় আপনি সংবিধানের পক্ষে, নইলে বিপক্ষে।’’

ত্রিপাঠি এও বলেছিলেন যে, ‘‘সিএএ-র বিরুদ্ধে কথা বলছি। তাতে কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছি, এমনটা ভাবার কোনও কারণ নেই। কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার কোনও ইচ্ছাই নেই আমার। বিজেপি ছেড়ে কোথাও যাচ্ছি না। ভোটব্যাঙ্কের কথা মাথায় রেখেই সিএএ আনা হয়েছে। এতে বিজেপি লাভবান হচ্ছে বটে, কিন্তু দেশের কোনও লাভ হচ্ছে না।’’

কিন্তু বৃহস্পতিবার রাতে বিধানসভার অধ্যক্ষর সঙ্গে দেখা করার পর তাঁর কমলনাথের বাড়িতে যাওয়ায় তীব্র জল্পনা তৈরি হয়েছে৷ রাজনৈতিক মহলে কানাঘুষো, বিজেপি ছেড়ে ত্রিপাঠি কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছেন৷ তবে বৈঠকের পর ত্রিপাঠি বলেছেন, আমি কোনও ইস্তফা দিইনি৷ আমার নির্বাচনী কেন্দ্রের উন্নয়নের ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে এসেছিলাম৷

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment